ছবি সংগৃহীত

দিনাজপুর প্রতিনিধি : ১৯৬৮ সালে পায়ে হেঁটে হজ পালনকারী দিনাজপুর সদর উপজেলার সেই হাজি মো. মহিউদ্দীন ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তার বয়স হয়েছিলো ১১৫ বছর।

তিনি স্ত্রী, চার মেয়ে, দুই ছেলে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

গতকাল রোববার ১০ অক্টোবর দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে সদর উপজেলার রামসাগর মেয়ের বাড়িতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

দিনাজপুর সদর উপজেলার ৯ নম্বর আশস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া হাজি মহিউদ্দীনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সোমবার বাদ জোহর রামসাগর জাতীয় উদ্যানের বায়তুল আকসা জামে মসজিদের সামনে তার জানাজা হয়। এরপর রামসাগর দীঘিপাড়ায় পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

হাজী মো. মহিউদ্দীন ১৯০৬ সালের ১০ আগস্ট জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬৮ সালে হজ করার উদ্দেশ্যে পায়ে হেঁটে দিনাজপুর থেকে রওনা দেন তিনি। পায়ে হেঁটে হজে যাওয়া-আসা করতে তার সময় লেগেছিল ১৮ মাস।

এ ১৮ মাসে তিনি পাড়ি দেন কয়েক হাজার কিলোমিটার পথ। এ সময়ে তিনি সফর করেন ৩০ দেশ। যে দেশগুলো তিনি সফর করেছেন মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সেসব দেশের নাম তিনি মুখস্ত বলতে পারতেন।

হাজি মহিউদ্দীন দিনাজপুর সদর উপজেলার রামসাগর দীঘিপাড়া গ্রামের মৃত ইজার পণ্ডিত ও মমিরন নেছার ছেলে। তিনি জাতীয় উদ্যানের বায়তুল আকসা জামে মসজিদের সাবেক ইমাম।