কিংবদন্তি কথাসাহিত্যিক, বাংলা চলচ্চিত্র, টেলিভিশন নাটকের নন্দিত নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের ৭৪তম জন্মদিন রোববার ১৩ নভেম্বর পালিত হলো। এই কিংবদন্তির জন্মদিন উপলক্ষে উৎসব মুখর পরিবেশে চ্যানেল আই প্রাঙ্গণের চেতনা চত্বরে প্রতি বারের মতো এবারও অনুষ্ঠিত হলো ঐক্যডটকমডটবিডি ‘হুমায়ূন মেলা’। পাওয়ার্ড বাই নতুন ধারা ইন অ্যাসোসিয়েশন উইথ মেট্রোসেম। ওইদিন ১১.০৫ মিনিটে শুরু হয় ‘চ্যানেল আই হুমায়ূন মেলা’।

ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড ও চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগরসহ বক্তব্য রাখেন হুমায়ূন আহমেদের বন্ধু, স্বজনসহ গুণীজনরা।

এ সময় স্বাগত বক্তব্যে ফরিদুর রেজা সাগর বলেন, ‘আজকের দিনে, হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে তিনি কোথায় আছেন আমরা জানি না। তাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে আমরা হুমায়ূন মেলা শুরু করছি। ঐক্য ডট কম ডট বিডি ‘হুমায়ূন মেলা’।’

এ প্রসঙ্গে অভিনেত্রী দিলারা জামান বলেন, ‘হুমায়ূন আহমেদ একটি তারার নাম, নক্ষত্রের নাম। যে মানুষটির জন্য আজকে আমি দিলারা জামান। আমার জনপ্রিয়তা, আমার অর্জন, তার পেছনে এই মানুষটি। তাকে স্যালুট জানাই।’

অন্যপ্রকাশের প্রকাশক ও প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘চ্যানেল আইয়ের সাথে হুমায়ূন আহমেদের ছিল আত্মিক সম্পর্ক। তিনি সবসময় বলতেন আমরা একই পরিবারের মানুষ।’

ঐক্য ফাউন্ডেশনের সভাপতি শাহীনা আক্তার রেনি জানান, ‘হুমায়ুন আহমেদের লেখা, উপন্যাস, গান, সুর সবই আছে। শুধু উনি নেই। তার পরেও উনি আমাদের মাঝে বিচরণ করছেন। তাঁকে জানাই শুভ জন্মদিন। হুমায়ূন আহমেদ আমাদের প্রাণে চিরজীবন থাকবেন।’

নাসিরুদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু বলেন, ‘শরৎচন্দ্রের পর বাঙালি মধ্যবিত্তের পাঠাভ্যাস চলে গিয়েছিল। সত্তর এবং আশির দশকে হুমায়ূন আহমেদ এই দায়িত্ব তুলে নিলেন। শুধু তুলে নিলেন বললে ভুল হবে। একেবারে বিপ্লব ঘটালেন। তার বই ছাড়া সেই সময়ে তরুণদের চলতোই না। তাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশের প্রকাশনা শিল্পের বড় উত্থান ঘটে।’

বক্তব্য শেষে বেলা সাড়ে ১১টায় হলুদ বেলুন উড়িয়ে উদ্বোধন ঘোষণা করা হয় হুমায়ূন মেলার। মেলা প্রাঙ্গণে এসময়ে হলুদ পাঞ্জাবী আর নীল শাড়ি পরে উপস্থিত ছিলেন অসংখ্য হিমু ও রূপা। ঢাকের শব্দে জমে ওঠে মেলা প্রাঙ্গণ। বিভিন্ন অঙ্গনের হুমায়ূন ভক্ত ও বিশিষ্টজনরা উপস্থিত হয়েছেন হুমায়ূন মেলায়।

জন্মদিন উপলক্ষে চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে স্থাপিত বিশেষ উন্মুক্ত মঞ্চে চলে হুমায়ূন আহমেদের লেখা গান ও গানের তালে নাচ। গান করেছেন রফিকুল আলম, সেলিম চৌধুরী, অনিমা রায় প্রমুখ। তার স্মরণে স্মৃতিকথা বলেন অনুষ্ঠানে আগত বিশিষ্টজনরা। আরো ছিল হুমায়ূন আহমেদের লেখা থেকে আবৃত্তি পরিবেশনা। হুমায়ূন স্মরণে চিত্রাঙ্কন করেছেন প্রবীন শিল্পী মনিরুজ্জামান, আবদুল মান্নানের সাথে বিভিন্ন বয়সী শিশুশিল্পীরা।

মেলাতে হুমায়ূন আহমেদের বই, তার নির্মিত চলচ্চিত্র ও নাটকের ভিডিও সিডিসহ বিভিন্ন ধরণের পণ্য ও সেবার পসরা দিয়ে সাজানো হয়েছে স্টলগুলো। ছিল ঐক্য ডট কম ডট বিডির স্টল।

মেলা পরিচালনা করছেন আমীরুল ইসলাম। উপস্থাপনায় ছিলেন অপু মাহফুজ, সাফি আহমেদ, দিলরুবা সাথী ও মনামী মেহনাজ। মেলা সরাসরি সম্প্রচার করেছে চ্যানেল আই। – বিজ্ঞপ্তি