শেখ মোহাম্মদ আলী, সুন্দরবন অঞ্চল প্রতিনিধি : সুন্দরবনের বনজীবিদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা করেছেন বাগেরহাটের পুলিশ সুপার কে এম আরিফুল হক পিপিএম।

শুক্রবার সকাল ১০টায় সরকারি রায়েন্দা পাইলট হাইস্কুল মাঠে শরণখোলা থানা পুলিশ এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

সভায় শরণখোলা, মোরেলগঞ্জ ও কচুয়া উপজেলার জেলে ও আত্মসমর্পণকৃত বনদস্যু, মৎস্য ব্যবসায়ী, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার বলেন, ২০১৮ সালের পর থেকে সুন্দরবন দস্যুমুক্ত ছিল। কিন্তু বর্তমানে ছোট্ট একটি নব্য বাহিনী নেমে জেলেদের উপর হামলা করছে। এ খবরের সাথে সাথে পুলিশের অভিযানে ওই দস্যু বাহীনি তিনজনকে ইতোমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিরাও পুলিশের জালের মধ্যে রয়েছে। এ অবস্থায় তিনি দস্যুদের আত্মসমর্পণের আহবান জানান। অন্যথায় জেলেদের সহযোগীতায় অচিরেই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। এ ছাড়া জেলেদের দাবীর প্রেক্ষিতে সুন্দরবনে টহলের জন্য তিনি একটি দ্রুতগামী জলযান দেয়ার ঘোষনা দেন।

শরণখোলা থানার অফিসার ইন চার্জ মোঃ ইকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিখি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নুর ই আলম সিদ্দিকী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আসাদুজ্জামান।

আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বিভিন্ন বিষয় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মিলন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৎস্য ব্যবসায়ি এম সাইফুল ইসলাম খোকন, শরণখোলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ইসমাইল হোসেন লিটন, খোন্তাকাটা ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসন খান মহিউদ্দিন, ধানমাগর ইউপি চেয়ারম্যান মাইনুল ইসলাম টিপু প্রমুখ।

উপস্থিত বনজীবিরা এ সময় বনদস্যু দমনের পাশাপাশি নৌ-পুলিশ ও বন বিভাগের বিভিন্ন হয়রানি বন্ধের দাবী জানান। পরে পুলিশ সুপার দুস্থ জেলেদের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেন।