কুমিল্লা সংবাদদাতা : কুমিল্লার দেবিদ্বারে কুমিল্লা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কে এক সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষিকাসহ একই পরিবারের ২ জন নিহত হয়েছেন। তারা সম্পর্কে দাদী ও নাতী।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মহাসড়কের দেবিদ্বার পৌর এলাকার সাইলচর এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনায় সিএনজি অটোরিকশার চালকসহ আরো চারজন আহত হন। নিহত দুইজন ও আহত তিনজন একই পরিবারের সদস্য। তারা একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ শেষে বাড়ি ফেরার পথে এই দুর্ঘটনায় পতিত হন।

নিহতরা হলেন- দেবিদ্বার পৌর এলাকার বাড়েরা গ্রামের বজলুর রহমানের স্ত্রী ও উপজেলার ধামতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা হাজেরা বেগম (৫০) ও তার নাতী আবির (৫)।

আহতরা হলেন- হাজেরা বেগমের স্বামী বজলুর রহমান (৬৫), মেয়ে মনিরা আক্তার (১৪), নাতি আশিক (৭) ও অটোরিকশা চালক দেবিদ্বার পৌর এলাকার উত্তর ভিংলাবাড়ি গ্রামের আব্দুল আলীমের পুত্র শান্ত (২০)।

স্থানীয়রা জানান, কুমিল্লা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কের দেবিদ্বার পৌর এলাকার সাইলচর এলাকায় সিএনজি অটোরিক্সাকে পেছন থেকে আসা দ্রুতগামী একটি ট্রাক ধাক্কা দিলে সিএনজি অটোরিকশাটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে ২ জন নিহত এবং চালকসহ চার যাত্রী গুরুতর আহত হন। দূর্ঘটনার পর তাদেরকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর শিক্ষিকা হাজেরা বেগম ও তার নাতী আবির মারা যান। আশঙ্কাজনক অবস্থায় বজলুর রহমানকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মীরপুর হাইওয়ে পুলিশের ওসি মো. কামাল উদ্দিন জানান, দুর্ঘটনাকবলিত সিএনজি ও ট্রাকটি পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নাফিস ইমতিয়াজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, দাদী হাজেরা ও নাতী আবিরকে মৃত অবস্থায় আনা হয়েছে। এ ছাড়া বজলুরের অবস্থা ভালো ছিল না তাই তাকে ঢাকায় নিতে বলা হয়েছে। অন্যরা কুমিল্লা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।