ঈদগাঁও (কক্সবাজার) প্রতিনিধি : কক্সবাজার জেলার ঈদগাঁও চাঁন্দেরঘোনা এলাকায় যাত্রীবাহী বাসের চাপায় সিএনজির এক যাত্রী নিহত হয়েছে। শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ঈদগাঁও চাঁন্দেরঘোনার বালুরতল নামক স্থানে রাস্তা পারাপারকালে এক পাগলকে রক্ষা করতে গিয়ে চট্টগ্রামমুখী পূর্বানী পরিবহনের বাসটি কক্সবাজারমুখী সিএনজি গাড়ীকে সাথে নিয়ে মহাসড়কের পূর্ব পাশ্বে জমিতে পড়ে যায়। এই সময় পূর্বানী পরিবহনের নিচে যাত্রীসহ চাপা পড়ে সিএনজি। ঘটনার খবর পেয়ে পরপরেই রামু ফায়ার সার্ভিস, হাইওয়ে পুলিশ, ঈদগাঁও থানা পুলিশ, ঈদগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান ছৈয়দ আলম ঘটনাস্থলে ছুটে আসে।

দূর্ঘটনার ঘন্টাখানিক পরে পূর্বানী পরিবহনটি খাদে পড়া থেকে ক্রেন দিয়ে টেনে তুলে নিচে চাপা পড়া সিএনজির চালকসহ তিনযাত্রীকে উদ্বার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এতে দুর্ঘটনা কবলিত সিএনজিটি ঘটনাস্থলে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। প্রায় দেড়ঘন্টা ধরে মহাসড়কের দুই পাশে দুরপাল্লাসহ অন্যান্য যানবাহন আটকা পড়ে।

উদ্বারকৃতরা হল- সিএনজি চালক খুটাখালীর জিসান, যাত্রী খুটাখালীর শফি,ছেনুয়ারা বেগম, তসলিমা বলে জানা গেছে। তাদেরকে কক্সবাজারের বিভিন্ন হাসপা তালে প্রেরন করা হয়।

তবে ঘটনাস্থলে চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীর মধ্যম গর্জনতলীর আবুল কালামের স্ত্রী ছেনুয়ারা বেগম নিহত হয়। হতাহতের আত্মীয়-স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে উঠেছে এলাকার পরিবেশ।

দুয়েক প্রত্যক্ষদর্শীর সাথে কথা হলে তারা জানান, এক পাগলকে রক্ষা করতে গিয়ে ভয়াবহ দূর্ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় হতাহত হয়েছে।

রামু ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ইনচার্জ সোমেন বড়ুয়া- ঈদগাঁওর চান্দেরঘোনার সড়ক দূর্ঘটনায় (সন্ধ্যা ৭টা ১২ মিনিট) এই রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত এক মহিলা নিহত এবং তিনজন আহতের সত্যতা নিশ্চিত করেন।