সোহরাব হোসেন, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার বায়রা বাজারে এক নারী হাতুড়ে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় আহাম্মদ আলী (৬৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

অপচিকিৎসায় মৃত্যুবরণকারী ওই ব্যক্তি উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের পারিল (মাজার পাড়া) বড় নগর গ্রামের মৃত ময়চানের পুত্র।

জানা গেছে বুধবার (৬ অক্টোবর) দুপুরের দিকে আহাম্মদ আলী শরীর ব্যাথা ও জ্বর নিয়ে স্ত্রীর সাথে বায়রা বাজারের দেওয়ান ফার্মেসীতে চিকিৎসা নিতে আসেন। ফার্মেসীর দায়িত্বে থাকা হাতুড়ে ডাক্তার নিলুফা ইয়াসমিন (৩৫) আহাম্মদের শরীরে ইনজেকশন পুশ করে।

এক পর্যায়ে তার অবস্থার অবনতি হলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আশেপাশের লোকজন ওই ফার্মেসীতে জড়ো হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে নিলুফা ইয়াসমিন ফার্মেসী বন্ধ করে গা-ঢাকা দেন। জানা গেছে, অভিযুক্ত হাতুড়ে ডাক্তার নিলুফা ইয়াসমিন বায়রা বাজার এলাকার মৃত মফিজ ডাক্তারের মেয়ে।

এদিকে ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর খবর পেয়ে রাতেই থানা পুলিশ ও স্থানীয় সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত হন। এর আগে নিহতের স্বজনরা সমাঝোতার মাধ্যমে লাশ নিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) সকাল ৯টায় পারিল নূর মহসিন বিদ্যায়তন খেলার মাঠে নামাজে জানাযা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে লাশ দাফন করা হয়।

নিহতের পরিবার ময়না তদন্ত ও মামলা-মোকদ্দমা এড়াতে থানায় অভিযোগ ছাড়াই লাশ দাফন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

অভিযুক্ত নিলুফা ইয়াসমিনের বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার মা রাবেয়া বেগম জানান ইনজেকশন পুশ করার পর সামান্য সুস্থ হলেও পরে রোগীর মৃত্যু হয়।

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মো. আবু হানিফ বলেন, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত কোন অভিযোগ না দেয়ায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হয়নি।