সোহরাব হোসেন, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের সিংগাইর পৌর এলাকার কাশিমনগর মহল্লায় ফাঁকা বাড়িতে একা পেয়ে সদ্য বিবাহিতা জনৈক নারীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে পুলিশ শুক্রবার রাতে ৩ জনকে আটক করে। শনিবার (১৫ অক্টোবর) ভুক্তভোগী ওই নারীর পিতা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের বড়বাঁকা গ্রামের ইদ্রিস আলীর পুত্র ইমন (২৩), জহিরুল ইসলামের পুত্র রিফাত (১৮) ও মৃত অছিমুদ্দিনের পুত্র জসিম (২৬)।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ভিকটিমকে শুক্রবার বিকেলে বাড়িতে একা পেয়ে অভিযুক্তরা মিলে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এ সময় ওই নারী কৌশলে ওদের কবল থেকে ছুঁটে গিয়ে ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দিয়ে নিজেকে রক্ষা করে।

ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করে। সন্ধ্যার পর এলাকার গণ্যমান্যরা মিমাংসার কথা বলে জড়িত ইমন, রিফাত ও জসিমকে ডেকে আনে। এ সময় উত্তেজিত জনতা জসিমকে ধরে বেধড়ক মারধর করে। অপর দু’জন অবস্থা বেগতিক দেখে পার্শবর্তী ইমনদের ঘরে আশ্রয় নেয়।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই রাতেই ৩ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় বিক্ষুদ্ধ জনতা পুলিশের পিকআপ ভ্যান লক্ষ্য করে ঢিল ছুঁড়ে। সেই সাথে জনৈক পৌর কাউন্সিলরকেও লাঞ্চিত করে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত রিফাতের পিতা জহিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. আবুল হোসেন বলেন, আটককৃত ৩ জনকে কোর্টে চালান করা হয়েছে। ভিকটিমকে ২২ ধারায় জবানবন্দীর জন্য আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সফিকুল ইসলাম মোল্যা বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। উত্তেজিত জনতা পুলিশের গাড়ীতে নয়, আসামীদের লক্ষ্য করে ঢিল ছুঁড়েছে।