সোহরাব হোসেন, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : প্রতিপক্ষের দায়ের করা মামলায় জামিনে কারামুক্ত হয়ে বাড়িতে আসার পর প্রকাশ্যে খুন হয়েছেন মো. জুলহাস ফকির (৩৫) নামের এক যুবক। বুধবার (১২ জানুয়ারি ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ নতুন বাসস্ট্যান্ডে এ ঘটনা ঘটে।

খুনের ঘটনায় জড়িত মুজিবুর রহমান (৭০), রাকিব হোসেন (২২) ও মানিক (২৫) নামের তিন জনকে পুলিশ আটক করেছেন বলে জানা গেছে । নিহত জুলহাস জয়মন্টপ ইউনিয়নের ফকির পাড়া গ্রামের মৃত মোঃ নওয়াব আলীর ছেলে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৬ ডিসেম্বর জুলহাস ও বেপারী পাড়া গ্রামের মুজিবুরের পুত্র দুলালের পরিবারের মধ্যে ঝগড়া হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওইদিন বিকেলে জুলহাসের পরিবারের লোকজন জয়মন্টপ উচ্চ বিদ্যালয়ের গেটের সামনে দুলালকে মারধর করে। এতে দুলালের বাবা মুজিবুর বাদি হয়ে জুলহাসসহ ৯ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে।

ওই মামলায় জুলহাস বুধবার (১২ জানুয়ারি ) দুপুরে জামিনে ছাড়া পেয়ে সন্ধ্যায় জয়মন্টপ নতুন বাসস্ট্যান্ডে চা খেতে গেলে দুলালের নেতৃত্বে ৮-১০ জনের সশস্ত্র গ্রুপ তাকে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। পরে আহত জুলহাসকে সাভার এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহতের পরিবারের দাবি, খুনিরা পরিকল্পিতভাবে জুলহাসকে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

এ সময় তার সঙ্গে থাকা বাটি গ্রামের মোঃ শহিদুল ইসলাম খোকনকেও মারধর করে মারাত্মক আহত করে। এরপর তারা ভাকুম ব্যাঙ্গা মার্কেটে জুলহাসের আত্মীয় আলমগীরের ওপর হামলা চালিয়ে তাকেও মারধর করে। এ ঘটনায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। নিহতের পরিবারে বইছে মাতম।

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্যা বলেন, নিহত জুলহাসের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।