সোহরাব হোসেন, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) : তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রাম্য সালিশ চলাকালীন প্রতিপক্ষের মারধরে অন্তসত্ত্বা নারীসহ ৬ জন আহত হয়েছেন। সোমবার (১৩ জুন) বিকেলে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার সায়েস্তা ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত পরিবারের পক্ষ থেকে পরদিন থানায় অভিযোগ দায়ের করলে এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত (বুধবার ১৫ জুন) মামলা নথিভুক্ত হয়নি বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, হাঁস পালনকে কেন্দ্র করে ধুনাই বেপারীর পুত্র আক্কাছ আলী ও দুদু ফকিরের পরিবারের মধ্যে দ্ব›দ্ব হয়। এ নিয়ে ঘটনার দিন বিকেলে একই গ্রামের আবুল কালামের বাড়িতে সালিশ বৈঠক বসে। সায়েস্তা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হালিমের পিতা আলী হোসেনের সভাপতিত্বে সালিশ বৈঠকে দুদু ফকিরের ছেলে-আকমত, সোহান, কালাম, আমের ও জামাল তাদের প্রতিপক্ষ আক্কাছ আলীসহ তার পরিবারের লোকজনের ওপর হামলা চালায়।

এতে দু’ নারীসহ ৬ জন গুরুতর আহত হন।

আহতরা হলেন- গৃহকর্তা আক্কাছ আলী (৩৬), স্ত্রী কমলা (২৫) , পুত্র সোহান (১১),শ্যালিকা কমল (২০), করম আলী(৬৫) ও আমিনুর ইসলাম (৩৪)। আহতদের মধ্যে কমল দু’মাসের অন্তস্বত্ত্বা বলে পরিবারের দাবী। আহত সকলকেই সিংগাইর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলেও অন্তস্বত্ত্বা কমল ও সোহানের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

সালিশ বৈঠকে উপস্থিত মাদবর আবুল হোসেন মিলিটারী বলেন, সালিশের শেষ পর্যায়ে দুদু ফকিরের ছেলেরা অন্যায়ভাবে আক্কাছ ও তার পরিবারের লোকজনকে বেধড়ক মারধর করে।

এদিকে, অভিযুক্ত পরিবারের লোকজনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে প্রতিবেশীরা এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সফিকুল ইসলাম মোল্যা বলেন, লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।