বগুড়া অফিস : বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ওষুধের দোকানে চাঁদাবাজির সময় সুজন হোসেন (৩৫) নামের এক প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে সান্তাহার পৌর শহরের উপহার টাওয়ার এলাকায় মেহেরুন নেছা ফার্মেসির সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়। সে নাটোর জেলার লালপুর উপজেলার গোপালপুর গ্রামের সেন্টুর ছেলে। এ সময় তার সাথে থাকা আরেক প্রতারক কৌশলে পালিয়ে যায়।

মেহেরুন নেছা ফার্মেসির মালিক শফিকুল ইসলাম ভুট্টু জানান, প্রতারক সুজনকে ডিবি পুলিশ সাজিয়ে সোমবার রাতে তার দোকানে নিয়ে আসেন। এরপর তার দোকানে মাদক জাতীয় ওষুধ বিক্রি করা হয় এমন অভিযোগ তুলে ঝামেলা সৃষ্টি করেন।

একপর্যায়ে তিনি বিরক্ত বোধ করেন এবং ঝামেলা এড়াতে তাদের ৫০০ টাকা দিয়ে বিদায় করেন। পরের দিন মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে ফের তারা দুজন দোকানে গিয়ে ৫ হাজার টাকা দাবী করেন। কিন্তু টাকা না দেয়ায় গ্রেপ্তারের ভয় দেখান।

এ সময় প্রতারক কথিত সাংবাদিক বাপ্পী ও সুজনের আচরন সন্দেহ জনক হওয়ায় পরিচয় পত্র দেখতে চান। তারা সেটি দেখাতে সক্ষম না হওয়ায় বাপ্পী কৌশলে দৌঁড়ে পালিয়ে যায় এবং সুজনকে আটক করা হয়।

সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আরিফুল ইসলাম জানান, সুজনকে আটক করা হয়েছে এবং তার সঙ্গী মিরু হাসান বাপ্পী আগেই পালিয়ে গেছে।