এম এ করিম, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে সোহেল মিয়া (১৫) নামে এক অটোচালককে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। হত্যার এক দিন পর বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারী) বিকালে উপজেলার বাড়িউড়া নোয়াবাড়ি এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশের খালের বীজতলা থেকে হাতের রগ ও গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছেন সরাইল থানা পুলিশ।

নিহত সোহেল মিয়া সরাইল উপজেলার সদর ইউনিয়নের সৈয়দটুলা গ্রামের পশ্চিম পাড়া বন্দেরবাড়ির শামসু মিয়ার পুত্র। সে পেশায় অটোরিকশা চালক ছিল।

নিহত সোহেলের পারিবারিক সূত্র জানায়, বুধবার (৪ জানুয়ারী) দুপুরের পর অটোরিক্সা নিয়ে বের হয়ে রাত হলেও বাড়ি ফিরেনি সোহেল। উদ্বিগ্ন পরিবারের লোকজন সম্ভাব্য সকল জায়গায় সোহেলকে খোজাখুজি করেও তার কোনো সন্ধান পাননি।

আজ বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারী) বিকালে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নিচে খালের পাশে বীজতলায় একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে সরাইল থানা পুলিশ ঘট৷নাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে নিখোঁজ সোহেলের পরিবারের লোকজন গিয়ে লাশটি সোহেলের বলে সনাক্ত করেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করে।

এদিকে সরজমিনে নিহত সোহেলের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় স্বজনদের মাঝে চলছে আহাজারি। সোহেলের পিতা সামসু মিয়া সড়ক দুর্ঘটনায় একটি পায়ে গুরুতর আঘাত পেয়ে পুঙ্গ হয়ে যান। পরিবারের বড় ছেলে হিসেবে ১৫ বছরের কিশোর সোহেল অটোরিক্সা চালিয়ে পরিবারের হাল ধরেন। হত দরিদ্র পরিবারের এক মাত্র উপার্জনক্ষম সোহেলকে হারিয়ে দিশেহারা পরিবারটিতে চলছে শোকের মাতম।

এ ব্যপারে সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আসলাম হোসেন বলেন, উদ্ধারকৃত লাশের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন দেখে প্রাথমিকভাবে মনে করছি এটা হত্যাকান্ড। ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে এবং পাশাপাশি ঘটনার রহস্য বের করার চেষ্টা চলছে।