নির্মাণাধীন বসতঘরের ছবি ও নির্মাণ সামগ্রী।

এম এ করিম, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে নির্মানাধীন “প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্প” এর বসতঘর নির্মাণের শুরুতেই নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার কালিকচ্ছ ইউনিয়নের গলানিয়া-চানপুর সড়কের পাশে ও একই ইউনিয়নের দত্তপাড়ায় নির্মাণাধীন এ প্রকল্পের বসতঘরে নিম্নমানের ইট( মিঠা ইট) ও ভিটিবালু দিয়ে ঘরের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

সরাইল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার দপ্তর সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্পের অধীনে মোট ৩শত ৭০টি বসতঘর নির্মাণ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এদের মধ্যে উপজেলার কালিকচ্ছ ইউনিয়নের গলানিয়া-চানপুর সড়কের পাশে ৬৬টি বসতঘর ও একই ইউনিয়নের দত্তপাড়ায় এক জায়গায় ৫৪ টি ও অন্য দুই জায়গায় ১৫টি ও ১৮টি বসতঘর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে।

সরজমিনে আশ্রয়ণ প্রকল্পঘুরে ও বসতঘর নির্মাণ কাজে জড়িত সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে উক্ত জায়গায় প্রকল্পের বসতঘর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। এ কাজের শুরুতেই নিম্নমানের ইট ও ভিটি বালু ব্যবহার করা হচ্ছে। চানপুর প্রকল্পের বসতঘর নির্মাণ শ্রমিক আব্দুল আজিজ ও দত্ত পাড়া প্রকল্পের বসতঘর নির্মাণ শ্রমিক আব্দুর রাজ্জাক এর সাথে কথা হলে কাজের শুরুতেই নিম্ন মানের মিঠা ইট ও ভিটি বালু ব্যবহারের কথা স্বীকার করে তারা বলেন প্রথম দিকে কিছু মিঠা ইট ও ভিটি বালু ব্যবহার করা হয়েছে। এ ব্যপারে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগ করার পর থেকে এখন আর মিঠা ইট ও ভিটিবালু ব্যবহার করা হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে কালিকচ্ছ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা সলিম উদ্দিন ও একই ইউনিয়নের দত্ত পাড়ার বাসিন্দা আতাউর রহমান একই অভিযোগ করে বলেন, ভূমিহীন ও বাস্তুহারা হত দরিদ্র মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্প একটি জনকল্যাণমূলক ও প্রশংসনীয় উদ্যোগ। কিন্তু গরীবের এই বসতঘর নির্মাণে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছে। এটা আদৌ কাম্য নয়।

এর সাথে জড়িতদের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনসহ এ প্রকল্পে যেন কোনোভাবেই নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রহীর ব্যবহার কেউ না করতে পারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি এ দাবি জানাচ্ছি।

এ ব্যপারে সরাইল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাজ কুমার শীল বলেন, আশ্রয়ন প্রকল্পের বসত ঘর নির্মাণ কাজে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ সঠিক নয়।

সরাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আরিফুল হক মৃদুল বলেন, সরকারি বিধি অনুযায়ী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ভূমিহীন ও বাস্তুহারা মানুষদের জন্য বসতঘর নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। আমরা প্রতিনিয়ত এ কাজ মনিটরিং করছি। এ কাজে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই।