জামালপুর প্রতিনিধি : কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহ্ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন বলেছেন, আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী মন্ত্রীরা এতদিন দাম্ভিকতা করে তাদের বক্তৃতায় বলেছেন আমরা এখন আর ভিক্ষা করি না আমরা এখন ভিক্ষা দেই। আমরা এখন ঋণ করিনা আমরা এখন ঋণ দেই। জনগণকে মিথ্যাচার করে বাংলাদেশকে আজ চরম বিপর্যয়ের মধ্যে ফেলে দিয়েছেন তারা।

শুক্রবার সকালে জেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে জ্বালানী তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি, বিদ্যুৎ খাতে চরম লোডশেডিং এবং দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতির প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শাহ্ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন আরও বলেন, সরকার এতদিন বলেছেন ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছেন। আজকে বিদ্যুতের চরম বিপর্যয়। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন দিনে দুই ঘন্টা বিদ্যুৎ লোডশেডিং হবে। এখন সারাদিনে দুই ঘন্টা বিদ্যুৎ থাকে কিনা এটাই বাংলাদেশের মানুষের প্রশ্ন? আজকে তেলের দাম অস্বভাবিক বৃদ্ধির ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যসহ প্রতিটি জিনিসের দাম হু হু করে বাড়ছে সরকার কোন ব্যবস্থা নেয়না। কারন সরকার বুজতে পেরেছে এই সরকার আর বেশিদিন নাই। চলে যাওয়ার আগে যা খাওয়ার লুটেপুটে খেয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন বলে জানান এই বিএনপি নেতা

জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ফজলুল হকের সভাপতিত্বে ও দপ্তর সম্পাদক গোলাম রব্বানীর সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি সফিউর রহমান সফি, জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্মসাধারণ সম্পাদক শহীদুল হক খান দুলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম খান সজিব, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন মিলন ও শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহ্ আব্দুল্লাহ আল মাসুদ প্রমুখ।

বিক্ষোভ সমাবেশে জেলা বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দল, মহিলা দল, মৎস্যজীবী দলসহ বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেয়।