রাঙামাটিতে পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স

মুহাম্মদ ইলিয়াস, রাঙামাটি : পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স পুলিশসহ অংশীদারি সব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেটদের সেতুবন্ধ তৈরি করবে এবং এর মাধ্যমে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার পথে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতাও দূরিভুত হবে। বিচার বিভাগ’র সব অংশীদারের সঙ্গে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের ন্যায় বিচার প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করণও সহজ হয়ে ওঠবে। রাঙামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সম্মেলণ কক্ষে শনিবার অনুষ্ঠিত ‘পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি সম্মেলন-২০২২’র অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

রাঙামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হানিফ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মারুফ হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক আবদুল্লা আল মাহমুদ , রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতাল’র আরএমও ডাক্তার শওকত আকবর খান , সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শিপলু কুমার দে, বেগম ফারহানা ইয়াসমিন, বেগম ইসরাত জাহান পুনম, ফাতেমা বেগম মুক্তা, স্বর্ণ কমল সেন, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জামশেদ আলম, ফারজানা বেগম, কাউসার পারভিন, জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর মোঃ রফিকুল ইসলাম, নারী- শিশু’র পাবলিক প্রসিকিউটর মো সাইফুল ইসলাম অভি, রাঙামাটি জেলা আইনজীবী সমিতি নেতৃবৃন্দ ও জেলার সকল থানার অফিসার ইন্চার্জগণ উপস্থিত ছিলেন।

চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু হানিফ বলেন, জেলার বিভিন্ন থানায় তদন্ত থাকা অবস্থায় তদন্তকার্যক্রম দ্রুততা ও দক্ষতার সঙ্গে আইনের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করে আদালতে প্রতিবেদন প্রেরণ করতে হবে। যথাসময়ে মামলার সাক্ষী উপস্থাপন নিশ্চিত করত: তাদের নিরাপত্তা বিধান, গ্রেপ্তারের পর আইনের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আদালতে সোপর্দ করে পরোয়ানা জারির ক্ষেত্রে আরও তৎপর হওয়ার আহবান জানান।