খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : সড়ক দুর্ঘটনায় সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার অ্যান্ড্রু সায়মন্ডস নিহত হয়েছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৬ বছর। অস্ট্রেলিয়ার আরেক কিংবদন্তি ক্রিকেটার শেন ওয়ার্নের মৃত্যুর শোক এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেনি ক্রিকেট দুনিয়া। এর মাঝেই এলো এই শোকের সংবাদ।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাদের ওয়েবসাইটে সায়মন্ডসকে ‘কাল্ট ফিগার’ হিসেবে উল্লেখ করে লিখেছে- শনিবার রাতে কুইন্সল্যান্ডের হার্ভেতে একটি সড়ক দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়।

দুর্ঘটনার সময় একই গাড়িতে সায়মন্ডসের সঙ্গে তার স্ত্রী লরা এবং দুই সন্তান ছিল, তারা বেঁচে আছেন।

সায়মন্ডসের জন্ম হয় ইংল্যান্ডের বার্মিংহামে। যুক্তরাজ্যের কাউন্টি ক্রিকেটে বহুদিন খেলেছেন তিনি। কেন্ট, গ্লোস্টারশায়ার, ল্যাঙ্কাশায়ার, সারের হয়ে খেলেছিলেন তিনি।

কুইন্সল্যান্ড পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, অ্যালিস নদীর ব্রিজের কাছে হার্ভে রেঞ্জ রোডে গাড়িটি চলছিল। রাত ১১টার দিকে, গাড়িটি সড়ক থেকে ছিটকে যায়। জরুরি দায়িত্বে থাকা কর্তৃপক্ষ চেষ্টা করে তাকে বাঁচানোর কিন্তু জখমের কারণে সম্ভব হয়নি।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান লাখলান হেন্ডারসন বলেন, অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের সেরাদের একজন মারা গেছেন। তিনি ছিলেন প্রজন্মের সেরাদের একজন। কুইন্সল্যান্ডের সমৃদ্ধ ক্রিকেট ইতিহাসের অংশ। অস্ট্রেলিয়ার দুই বিশ্বকাপ জয়ী দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য।

সায়মন্ডস অস্ট্রেয়িলার হয়ে ২৬ট টেস্ট ম্যাচ, ১৯৮টি ওয়ানডে ম্যাচ ও ১৪টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। শক্তিশালী ব্যাটিং, বুদ্ধিদীপ্ত বোলিং এবং দারুণ ফিল্ডিংয়ের জন্য তিনি সুপরিচিত ছিলেন।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে দু’টি বিশ্বকাপ জিতেছেন তিনি। দুই হাজার ছয়-সাত মৌসুমে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অ্যাশেজজয়ী দলেরও গুরুত্বপূর্ণ অংশ ছিলেন সায়মন্ডস।

গত সপ্তাহে বেন স্টোকস কাউন্টি ক্রিকেটে এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ছক্কার যে রেকর্ডটি গড়েন সেটার আগের মালিক ছিলেন সায়মন্ডস, ১৯৯৫ সালে গ্ল্যামোরগানের বিপক্ষে তিনি ১৬টি ছক্কা মেরেছিলেন।

অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা তো বটেই বিশ্বব্যাপী ক্রিকেটাররা সায়মন্ডসের মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না।

ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন টুইট করেছেন, “সিমো… এটা সত্যি মনে হচ্ছে না।”

সায়মন্ডসের সাথে দীর্ঘদিন জাতীয় দলে খেলা অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, জেসন গিলেস্পিও টুইট করে জানিয়েছেন তারা ব্যথিত।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে।