এজেএম আহছানুজ্জামান ফিরোজ, শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি : শ্রীবরদীর অসহায় বৃদ্ধা জবিলা খাতুন (৯২)কে ঘর মেরামতের জন্য ঢেউটিন ও চেক প্রদান করেছে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফতেখার ইউনুস। ১০ অক্টোবর সোমবার দুপুরে তিনি ওই বৃদ্ধার দুই নাতি আব্দুল খালেক ও আব্দুল মালেকের কাছে ঘর নির্মাণের জন্য ঢেউটিন ও চেক প্রদান করেন।

জানা যায়, শেলপুরের শ্রীবরদী উপজেলার গোশাইপুর ইউনিয়নের উত্তর মাটিয়াকুড়া গ্রামের অসহায় হতদরিদ্র বৃদ্ধা জবিলা খাতুনের স্বামী নুশি খাঁ ২৫-৩০ বছর আগে মারা যায়। স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে ওই বৃদ্ধাকে তার ছেলে, ছেলের বউ ও নাতিরা দেখাশোনা করতো।

অভাবের তাড়নায় বৃদ্ধার ছেলে আব্দুর রহিম ওরফে টিপু তার স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় চলে যায়। এদিকে বৃদ্ধার নাতি মালেক ও খালেক ভাড়ায় রিকশা চালিয়ে নিজের পরিবার ও বৃদ্ধার দেখাশোনা করে। কিন্তু পরিবারের সদস্য বেশি হওয়ায় স্বল্প আয় দিয়ে ঘর মেরামত করা সম্ভব হয়নি।

তাই একটি ঝুপড়ি বসত ঘরের পাশে একচালা ছাউনি দিয়ে বৃদ্ধার জন্য থাকার ব‍্যবস্থা করে নাতিরা। জরাজীর্ণ এই ছাউনির নিচেই থাকতো বৃদ্ধা। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে নজরে আসে উপজেলা প্রশাসনের। পরে ৯ অক্টোবর রবিবার বৃদ্ধার বাড়িতে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফতেখার ইউনুস।

এ সময় তিনি ব‍ৃদ্ধার সাথে কথা বলেন ও সার্বিক খোঁজখবর নেন এবং তাৎক্ষণিক নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন। এ ছাড়া ঘর মেরামতের জন্য টিনের ব‍্যবস্থা, বিদ‍্যুৎ সংযোগসহ বিভিন্ন সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এ প্রেক্ষিতে পরদিন সোমবার ব‍ৃদ্ধার ঘর মেরামতের জন্য ৩ বান্ডিল ঢেউটিন ও ৯ হাজার টাকার চেক প্রদান করেন শ্রীবরদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফতেখার ইউনুস। এ ছাড়া বৃদ্ধার বাড়িতে দ্রুত বিদ‍্যুৎ সংযোগ প্রদানের ব‍্যবস্থা গ্রহণের জন্য পল্লী বিদ‍্যুতের ডিজিএম কে নির্দেশনা প্রদান করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফতেখার ইউনুসের কাছ থেকে ওই বৃদ্ধার দুই নাতি আব্দুল মালেক ও আব্দুল খালেক ব‍ৃদ্ধার পক্ষে ঢেউটিন ও চেক গ্রহণ করেন।