শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি : মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে হাঁসাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীদের বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও তাদের পরিবারের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

সোমবার দুপুর ১২টায় উপজেলার হাসাড়ায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জসিম উদ্দিন মুকুলের বিরুদ্ধে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ভূক্তভোগী শাহিদা বেগম বলেন, আমরা আওয়ামী লীগ পরিবার আমর ছেলে মো. শাহিন বর্তাম হাসাড়া ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি। গত ৭মে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রী-বার্ষিক সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দুপুরে সেখানে উত্তেজনার সৃষ্টি হয় ও সম্মেলন স্থগিত হয়ে যায়।

তার জের ধরে রাত ৯টার দিকে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জসিম উদ্দিন মুকুল ও যুবলীগ নেতা নাছিম সহ ১৫/২০ জন এসে গালিগালাজ করে আমার ছেলের নাম ধরে ডাকডাকি করে। তারা আমাদের দরজায় লথি মারে ও ঘরে লাঠি দিয়ে বারি দেয় এবং আমর ছেলকে যেখানে পারে সেখানে কুপিয়ে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে যায়। আমর ছোট নাতি নাতনিদের নিয়ে খুব ভয়ে আছি। আমারা এখন আমাদের পরিবার নিয়ে নিরাপত্তা হীনতায় ভূগছি।

ঝর্ণা বেগম তার বক্তব্যে বলেন, রাতে আমরা ঘরে শুয়ে ছিলাম। এসময় জসিম উদ্দিন মুকুল ও বাছের খালাসি সহ আমার ছেলে সাবেক ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি লিয়নের নামধরে ডাকডাকি করে। আমি উঠে দরজা খুলতে দেরি করায় তারা আমর ঘরের দরজাটা লথি মেরে ভেংগে ঘরে ঢুকে। আমর দুই ছেলেকে বের করে দিতে বলে। পরে ওদেরকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। আমাদের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে ভয়ে আছি।

হাসাড়া ইউনিয়র ছত্রলীগর সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমার পরিবার আওয়ামী লীগ করে ও আমি ছাত্রলীগ করি এটাই কি আমাদের অপরাধ? ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে আমরা আইয়ুব খানের সমর্থন করায় জসিম উদ্দিন মুকুল তারা সন্ত্রাসী বাহিনি নিয়ে আমাদের বাড়িতে হামলা করে। সে এখনো সাধারণ সম্পাদক হয়নি তাতেই যে ধরনের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালাচ্ছে। সে সাধারণ সম্পাদক হলে তো আমরা এলাকায় থাকতেই পাড়ব না।

হাসাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জসিম উদ্দিন মুকুল বলেন, আমরা বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছে তা সত্য নয়। তারা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে সেদিন সম্মেলনে একিট বিসৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে। এখন নিজেরাই একটি নাটকিয় ঘটনা তৈরি করে কমিটি বানচালের চেষ্ঠা চালাচ্ছে।