মুনীরুল ইসলাম, শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি : শ্রীনগর উপজেলায় বিচার প্রার্থীর কান ছিড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে ষোলঘর ইউপি সদস্য ফিরোজা বেগমের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় উপজেলার উমপাড়া বাজার সংলগ্নে ইদ্রীস মিয়ার বাড়ীর পাশে রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে আজ ১০ আগষ্ট (বুধবার) দুপুরে শ্রীনগর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

ভুক্তভোগী সিরিনা আহমেদ রেনু বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাত তিনটার দিকে আমার ১৩বছর বয়সী অপ্রাপ্তবয়স্ক ভাগ্নি তার প্রেমিক রাফসানের বাড়িতে গিয়ে ওঠে। ভাগ্নি অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় আমরা সপরিবারে তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনতে যাই। সে সময় ফিরোজা মেম্বার বাধা প্রদান করে।

এক পর্যায়ে কার সাথে কথা কাটাকাটি হয় ও হাতাহাতি। পরবর্তীতে আমাদের ভাগ্নিকে আমরা সেখান থেকে বাড়িতে নিয়ে আশি। মহিলা মেম্বারের আচরণের বিরুদ্ধে আমরা এলাকার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে বিচারের দাবী জানাই।

এতে মহিলা মেম্বার আমাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার সকাল নয়টার দিকে তার বোন চায়না বেগম, ভাগিনা আলী ইসলাম ও জুয়েলেসহ ৮/১০জন একটি দল আমাদের উপর হামলা করে আমার কান ছিরে নেয়। এসময় আমার মেয়ে জামাই রফিকুল ইসলাম আমাকে উদ্ধার করতে গেলে। ওরা আমার মেয়ে জামাইএর মাথা ফাটিয়ে দেয়।

ষোলঘর ইউপি নারী সদস্য ফিরোজা বেগম বলেন, আমার বিরুদ্ধে তামা মিথ্যা অভিযোগ করে। তারাই আমার ও আমার রোনের ছেলেদের উপর হামলা করেছে।

শ্রীনগর থানায় ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগের প্রেক্ষিতে একটি মামলা করা হয়েছে।