নেত্রকোনা প্রতিনিধি : শ্বাশুড়িকে নিয়ে পালিয়ে বিয়ের ১১ বছর আয়াতুল ইসলাম (৩৩) নামে পলাতক জামাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আয়াতুল শাশুড়িকে নিয়ে পালিয়ে বিয়ে করার ঘটনায় শ্বশুরের দায়ের করা মামলায় মোহনগঞ্জ থানার এসআই মমতাজ উদ্দিনের নেতৃত্বে রোববার রাতে আটপাড়া উপজেলার কৃষ্ণপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গুণধর মেয়ে-জামাই আয়াতুল মোহনহঞ্জ উপজেলার সমাজ-সহিলদেও ইউনিয়নের মেদিপাথরখাটা গ্রামের শাহ জামালের ছেলে।

সূত্রে জানা যায়, মোহনগঞ্জ উপজেলার একই গ্রামের মতি মিয়ার মেয়ে মরিয়মকে বিয়ে করে আয়াতুল। এক পর্যায়ে শ্বাশুড়ি নাসরিনের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে তার। পরে শাশুড়িকে নিয়ে পালিয়ে সিলেটে গিয়ে বিয়ে করে কয়েক মাস তারা একত্রে বসবাস করেন।

এ ঘটনায় শ্বশুর মতি মিয়া বাদি হয়ে আয়াতুলকে আসামি করে মোহনগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ২০১১ সনে। পরে ২০১৩ সনে মামলায় আয়াতুলকে এক বছর ছয় মাসের কারাদন্ড দেন সংশ্লিষ্ট আদালত। সেইসাথে দুই হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই মাসের কারাদন্ডও দেয়া হয়। তবে দেড় বছর আগে মামলার বাদি শ্বশুর মতি মিয়া মারা যান। এতদিন পালিয়ে থেকে আপন শ্বাশুড়িকে নিয়ে মেয়ে-জামাই ঘর সংসার করে আসছিল

মোহনগঞ্জ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সোমবার দুপুরে আয়তুলকে আদালতে প্রেরণ করা হযেছে। এই অনাকাঙ্খিত ঘটনায় এলাকায় আবারো চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।