মিজানুর রহমান মিজান, রংপুর অফিস : রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার শহীদবাগ এলাকায় মিফতাউল ফুড প্রোডাক্ট নামে একটি অননুমোদিত শিশু খাদ্য কারখানায় কাউনিয়া উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা তাহমিনা তারিমের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ বিভিন্ন ফ্লেভারের চিপস, লীচুসহ বিভিন্ন শিশু খাদ্য জব্দ করে।

কারখনা কর্তৃপক্ষ কোন বৈধ অনুমতি দেখাতে না পারায় সবগুলো মালামাল পুড়িয়ে ধংস করা হয়। সেই সাথে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা এবং কারখানাটি সীলগালা করে বন্ধ করে দেয়া হয়।

সোমবার (৩ জানুয়ারি) বিকালে ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমাণ অবৈধ মালামাল জব্দ করা হয়।

কাউনিয়া থানার ওসি মাসুমুর রহমান জানান, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার নেতৃত্বে কাউনিয়া থানা পুলিশ যৌথ ভাবে শহীদ বাগ এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত মিফতাউল ফুড প্রোডাক্ট কারখানায় অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন ফ্লেভারের চিপস ও লীচু সহ শিশু খাদ্য তৈরী করে প্যাকেজজাত করা অবস্থায় দেখতে পেয়ে কারখানার মালিক মফিজুল ইসলামের কাছে বিএসটিআইয়ের প্রয়োজনীয় অনুমতিসহ কাগজ পত্র দেখতে চাইলে মালিক কোন কাগজ দেখাতে পারেনি। ফলে শিশু খাদ্য গুলো খাবার অনুপযোগী ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক বিবেচনায় সব মালামাল আগুন ধরিয়ে দিয়ে ধংস করা হয়। সেই সাথে ভ্রাম্যমান আদালত কারখানার মালিককে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা এবং কারখানাটি সীল গালা করে বন্ধ করে দেয়।

পুলিশ জানায়, মিফতাহুল ফুড প্রোডাক্টের মালিক মফিজুল ইসলামের বাড়ি কাউনিয়া উপজেলার নিজপাড়া গ্রামে তার বাবার নাম আব্দুল ওহাব। সে বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই রাজশাহীর ঠিকানা ব্যবহার করে রংপুরে অবৈধভাবে শিশুখাদ্য তৈরী করে বাজারজাত করে আসছিলো।

এ বিষয়ে কাউনিয়া উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা তাহমিনা তারিম বলেন, অনুমতি ছাড়া শিশুখাদ্য উৎপাদনের অপরাধে সাময়িক জরিমানা ও বেশ কিছু মালামাল জব্দ করা হয়েছে আর সেই সাথে কারখানার মালিক মফিজুল ইসলামকে সাত দিনের সময় দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে কাগজপত্র দেখাতে না পারলে তার নামে ভোক্তা অধিকার আইনে মামলা হবে।