আবুল কাশেম, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : শাহজাদপুর সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুমনা আক্তার শিমু শাহজাদপুরে প্রতিদিন ৫০/৬০ জন রোজাদারকে নিজহাতে তৈরি করা ইফতারিসামগ্রী শাহজাদপুর প্রেসক্লাব ও হাইস্কুল রোড সংলগ্ন পথচারীদের মধ্যে বিরতণ করছেন।

তার এই মহতি উদ্যোগে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

জানা গেছে, শিক্ষক সুমনা আক্তার শিমু তার ‘আলোকবর্তিকা’ নামের সেবামূলক সংগঠনের ব্যানারে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে রোজার প্রথমদিন থেকে ইফতারিসামগ্রী বিরতণ করছে। সড়কের উপর পরিষ্কার করে তার উপর ইফতারি সুন্দরভাবে সাজিয়ে রেখে তিনি ও ১৫/২০ জন স্কুলের শিক্ষার্থী নিয়ে বিতরণ করছেন।

এ বিষয়ে শিক্ষক সুমনা আক্তার শিমু বলেন, ‘মানুষের জন্য কিছু করতে পেরে যে আত্মতৃপ্তি পাই, তা অন্য কিছুতে নয়! পথচারী রোজাদারের সাথে একটু আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতেই আমার ক্ষুদ্র এ প্রয়াস। আমি নিজ হাতে খিচুড়ী, ডিমসহ নিজে যা খাই সেইভাবে ইফতার তৈরি করে রোজাদার মানুষকে খাওয়াই।

কেউ ইচ্ছা করলে আমাদের সাথে সহযোগী হতে পারেন। যে যাই দিক না কেন আমি ৬০ জন মানুষকে প্রতিদিন ইফতারি দিব।’

এদিকে মানবতার প্রতি এই দরদ শাহজাদপুরের বিভিন্ন মহলে ব্যাপক প্রসংশা কুড়িয়েছেন।

শিক্ষক সুমনা বলেন, মানুষের জীবন কয়দিন। আমি পৃথিবীতে যতদিন বেঁচে থাকবো, আমি যেন সৎ কাজ করতে পারি ও অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে পারি। অসহায় দূঃস্থ মানুষের সেবা করাই আমার মূল উদ্দেশ্য।

এ ছাড়াও শীতকালে হাইস্কুলের দেয়ালে সাধ্যমতো শীতের পোশাক টাঙ্গিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। জনকল্যাণে নানা সেবামূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হচ্ছেন।