আমড়াগাছিয়া বাজারে সড়কের উপর সোমবার দুপুরে গরুর হাট। ছবি: প্রতিনিধি

শেখ মোহাম্মদ আলী, সুন্দরবন অঞ্চল প্রতিনিধি : শরণখোলার আমড়াগাছিয়া বাজারে সড়কের উপরে গবাদীপশুর হাট বসায় পথচারী ও যানবাহন চলাচলে মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। অনেক সময় গরু মহিষের হামলায় পথচারী আহত হওয়ার ঘটনা ঘটছে।

দীর্ঘদিন যাবৎ উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের আমড়াগাছিয়া বাজারের হাইস্কুলসংলগ্ন রাজাপুর বাজার অভিমুখি সড়কের উপরে প্রতি সোমবার ও বৃহস্পতিবার গরু ছাগলের হাট বসে। রাস্তার দুইপাশে সারিবদ্ধভাবে গরু, ছাগল ও মহিষ বেধে রাখায় মানুষ ও যানবাহন স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে পারেনা। অনেক সময় গবাদী পশুর হামলায় পথচারী আহতের ঘটনা ঘটছে।

বিশেষ করে বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা ভিতিকর পরিস্থিতি নিয়ে বিদ্যালয়ে যাতায়াত করে থাকে বলে অনেক অভিভাবক অভিযোগ করেছেন।

আমড়াগাছিয়া গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম লাল, আঃ জলিল, মনির তালুকদারসহ অনেকে বলেন, আসন্ন কোরবানীর পশুর হাটে ব্যপক ভীড় হবে তখন ঐ সড়কে সাধারণ মানুষ ও যানবাহন চলাচল করতে পারবেনা। গত দুই বছর পূর্বে এলাকাবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে বিকল্প জায়গায় গরুর হাট সরিয়ে নেওয়ার জন্য উপজেলা পরিষদ থেকে বালু ভরাট করা হয়েছিলো। কিšতু হাটটি আজও সরানো হয়নি।

ধানসাগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাইনুল ইসলাম টিপু বলেন, রাস্তার উপর গরুর হাটের জন্য মানুষের চলাচলে দুর্ভোগ হওয়ায় বিকল্প জায়গা নির্ধারণ করে দুইলাখ টাকা ব্যয়ে বালু ভরাট করা হয়েছে ইট সলিং না হওয়ায় হাট সরানো যাচ্ছে না। উপজেলা পরিষদ থেকে ইট সলিং করার কথা রয়েছে বলে জানালেন ইউপি চেয়ারম্যান।

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নুর-ই আলম সিদ্দিকী বলেন, আমড়াগাছিয়ায় সড়কের উপর গরুর হাটের বিষয় তার জানা নেই। বিষয়টি দেখবেন বলে জানান।

শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রায়হান উদ্দিন শান্ত বলেন, আগামী অর্থ বছরের এডিপি বরাদ্দ পেলে আমড়াগাছিয়ার গরুর হাটের জন্য বালু ভরাটের জায়গায় ইট সলিং করে দেওয়া হবে।