শেখ মোহাম্মদ আলী, সুন্দরবন অঞ্চল প্রতিনিধি : শরণখোলায় নেশাখোরের মারপিটে এক গৃহবধূ আহত হয়েছে। আহত গৃহবধূ লিপি বেগমকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে উপজেলার উত্তর কদমতলা গ্রামে।

আহত গৃহবধূর স্বামী আবজাল মোল্লা সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগে জানান, তার ভাই ইউনুস মোল্লার পুত্র বাচ্চু মোল্লা একজন বখাটে প্রকৃতির নেশাখোর। সে দীর্ঘদিন ধরে গাঁজা ও ইয়াবার ব্যবসা করে আসছে এবং বাচ্চু মোল্লার ঘরে বহিরাগত মানুষ নিয়ে গাঁজার আসর বসিয়ে থাকে। বাচ্চু মোল্লা ইতিপূর্বে ইয়াবাসহ ধরা পড়ে জেল হাজতে গিয়েছে।

শনিবার (৩০ অক্টোবর) সকালে বহিরাগত মানুষ নিয়ে নেশাদ্রব্য গ্রহণের সময় তার স্ত্রী লিপি বেগম (৪৫) ঘটনার প্রতিবাদ করলে বাচ্চু মোল্লা ও তার স্ত্রী পাখী বেগম লিপি বেগমকে বেদম মারপিট করে গুরুতর আহত করে এবং পাখী বেগম লিপি বেগমের গলার স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায় বলে অভিযোগে বলা হয়েছে।

এ সময় লিপি বেগমের ডাকচিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা চলে যায়। পরে আহত গৃহবধূকে শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। এঘটনায় থানায় মামলার প্রস্ততি নিচ্ছেন বলে গৃহবধুর স্বামী জানান।

শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সাইদুর রহমান জানান, নেশাখোরের হামলায় গৃহবধুর আহত হওয়ার খবর তার জানা নেই তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।