মিয়ানমার কতৃর্ক বাংলাদেশ সীমান্তে হামলা বন্ধ ও রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনের দাবিতে শুক্রবার ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)’র উদ্যোগে এক সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)’র সভাপতি কমরেড ডা: এম. এ. সামাদ বলেন, সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারনে একদিকে ভারত যেমন সীমান্তে বাংলাদেশীদের হত্যা-নির্যাতন চালাচ্ছে তেমনি মায়ানমারের মত দেশও বাংলাদেশ সীমান্তে বর্বরতা দেখানোর মতো সাহস দেখাচ্ছে। আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি মায়ানমার বাংলাদেশের ভিতরে মর্টারসেল নিক্ষেপ, গুলিবর্ষণ ও সৈন্য সমাবেশ করছে। এমন দঃসাহস দেখানোর কারন বাংলাদেশের এই সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতি ও ভোট ডাকাতি করে অবৈধভাবে ক্ষমতায় থাকায় সারাবিশ্ব এখন জেনে গেছে এই সরকারের সাথে জনগণ নেই। জনগনের সাথে সরকারের কোন সম্পর্ক নেই।

তিনি আরও বলেন, আজ ১৪ লক্ষ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অবস্থান করছে এটা দেশের শান্তি—শৃঙ্খলা নিরাপত্তাসহ নানাবিধ সমস্যা তৈরি করছে। অথচ সরকার এখন পর্যন্ত এদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে পারছে না। সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে।

সমাবেশে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)’র সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাহিদুর রহমান বলেন, সরকার সীমাহীন লুটপাট দুর্নীতি, গুম, খুন, অর্থ পাচার ও জনগণের উপর নির্যাতন চালাচ্ছে। জনবিচ্ছিন্ন সরকারের প্রতি আন্তর্জাতিক বিশ্বের কোন আস্থা নেই ।

সমাবেশে অনান্য বক্তারা বলেন, মায়ানমার সীমান্তে যে ধরনের হামলা ও আতঙ্ক সৃষ্টি করছে আমরা তার তীব্র নিন্দা জানাই। ভারত ও মায়ানমারকে সীমান্তে সকল ধরনের অপতৎপরতা বন্ধ করতে হবে এবং অবিলম্বে রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত নিতে হবে।

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল জাতীয় প্রেসক্লাব এলাকা প্রদক্ষিন করে।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কমরেড তালেবুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড জাহিদ আনসারী, কমরেড তারেক ইসলাম বিডি, কমরেড নূর আফসানা নীপা, নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বিজ্ঞানী সামসুল হক সরকারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। – বিজ্ঞপ্তি