খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : নানা কারণে মানুষের মন খারাপের পরিমাণ বাড়ছে। কাজের চাপ, বিশ্রামের অভাবের মতো কারণ তো আছেই, তার সঙ্গে এখন জুড়েছে করোনা সংক্রান্ত নানা চাপ। বাড়ি থেকে বেরনো, মেলামেশার পরিমাণ কমেছে। সব কিছুর প্রভাব পড়েছে মনের উপর। কিন্তু এই মন খারাপ কাটাতে সাহায্য করতে পারে হাঁটা।

ডাবলিন ট্রিনিটি কলেজের স্নায়ুবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক শেন ও’মারা সম্প্রতি তাঁর গবেষণাপত্রে হাঁটার সঙ্গে মনের সম্পর্ক নিয়ে একটি নিবন্ধ প্রকাশ করেছেন। সেখানে তিনি দাবি করেছেন, প্রতি দিন নিয়ম করে ১৫ মিনিট থেকে আধ ঘণ্টা হাঁটলেই শরীর অনেক ভাল থাকে। শুধু তাই নয়, মনও ভাল থাকে এর ফলে।

মানসিক স্বাস্থ্যের উপর হাঁটা কী ভাবে প্রভাব ফেলে? শেন ও’মারা তাঁর গবেষণাপত্রে যা যা বলেছেন, তার তালিকা রইল।

  • নিয়মিত হাঁটলে মস্তিষ্কে রক্ত চলাচলের পরিমাণ বাড়ে। মস্তিষ্কের কোষের মৃত্যুর হার কমে। ফলে মস্তিষ্ক অনেক বেশি সচল থাকে। তাতে মন খারাপ কিছুটা কমে।
  • বিভিন্ন হরমোনের প্রভাবে অবসাদ হতে পারে। দেখা গিয়েছে, যাঁরা নিয়মিত কিছু ক্ষণ হাঁটেন, তাঁদের মন ভাল রাখার হরমোনগুলির ক্ষরণ বাড়ে। অবসাদের জন্য যে হরমোনগুলি দায়ী, সেগুলির পরিমাণ কমে।
  • নিয়মিত হাঁটলে হজমশক্তি বাড়ে। তাতে মনও ভাল থাকে।
  • রোজ ১৫ থেকে ৩০ মিনিট হাঁটলে উদ্বেগের সমস্যা কমে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। এর ফলে যেমন মন ভাল হয়, তেমনই হৃদ্‌রোগের আশঙ্কা কমে।
  • আপনি কি কোনও একটি সমস্যার সমাধান খুঁজে পাচ্ছেন না? শেন ও’মারার গবেষণা বলছে, এমন পরিস্থিতিতে যদি হাঁটতে শুরু করেন, তা হলে সমাধান খুঁজে পাওয়া সহজ হবে। হাঁটার সময়ে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বাড়ে। তাতে সমস্যার সমাধান খুঁজে পাওয়া সহজ হয়। মানসিক চাপ কমে, মন ভাল থাকে।