ছবি: সংগৃহীত

খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : রাশিয়ার এক কয়লাখনিতে আগুন লেগে কমপক্ষে ৫২ জন নিহত হয়েছেন। খনিতে উদ্ধারকাজে নিয়োজিত দলের কয়েকজন সদস্যেরও মৃত্যু হয়েছে।

প্রাথমিক রিপোর্ট অনুাযায়ী, সাইবেরিয়ার একটি খনিতে কয়লার গুড়োয় আগুন ধরে যায়। ফলে সর্বত্র ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ে। ভেন্টিলেশন ব্যবস্থা ধোঁয়ায় কার্যত বন্ধ হয়ে যায়। রাশিয়ার ডেপুটি প্রসিকিউটার জেনারেল জানিয়েছেন, মিথেন বিস্ফোরণ থেকে আগুন লাগে।

অন্ততপক্ষে ৪৯ জন আহত হয়েছেন। সরকারিভাবে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ সাইবেরিয়ার এই খনি থেকে ২৩৯জন শ্রমিককে উপরে নিয়ে আসা সম্ভব হয়। সংবাদসংস্থা ইন্টারফ্যাক্স জানিয়েছে, ক্রেমলিনের মুখপাত্র বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পুটিন শোকপ্রকাশ করেছেন। তার আশা, যারা এখনো নিখোঁজ, তাদের দ্রুত খুঁজে পাওয়া সম্ভব হবে।

বৃহস্পতিবার খনিতে নেমে উদ্ধারকাজ চালাবার সময় অক্সিজেনের অভাবে ছয়জন উদ্ধারকারীর মৃত্যু হয়েছে। পরে উদ্ধারকারীদের খনির ভিতর থেকে উপরে নিয়ে আসা হয়। কারণ, কর্তৃপক্ষের আশঙ্কা খনিতে আরো বিস্ফোরণ হতে পারে। একটি উদ্ধারকারী দল আর উপরে উঠে আসতে পারেনি। ইন্টারফ্যাক্সকে সূত্র জানিয়েছে, পরে তাদের মৃতদেহ উপরে আনা হয়। তখন দেখা যায়, তাদের অক্সিজেন সিলিন্ডার পুরো খালি ছিল।

খনিতে আরো মিথেন গ্যাস জমা হচ্ছে। তাই শুক্রবার পর্যন্ত উদ্ধারকাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে খনির ডিরেক্টর, তার ডেপুটি এবং সাইট ম্যানেজারকে আটক করা হয়েছে। একটি ফৌজদারি মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

রাশিয়ায় প্রায়ই খনিতে দুর্ঘটনা হয়। কারণ, খনিগুলিতে সুরক্ষা ব্যবস্থা ভালো নয়। ২০১০ সালে সাইবেরিয়াতেই একটি কয়লাখনিতে দুর্ঘটনায় মারা গেছিলেন ৯১ জন। আহত হন একশর বেশি মানুষ। সেটাই রাশিয়ার সব চেয়ে বড় খনি দুর্ঘটনা।