রামপাল (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : রামপালে আওয়ামী লীগ নেতা ফিরোজ শেখ হত্যা মামলার আসামী বিল্লাল ব্যাপারীসহ ৯ জন উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে এলাকায় এসে আবারো মারপিটের ঘটনা ঘটিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিল্লাল ব্যাপারী গ্রুপের ৮ জনকে আটক করেছে। শুক্রবার বিকাল ৫টায় উপজেলার ভাগা বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে গত ১৭ ডিসেম্বর প্রকাশ্যে দিনের বেলায় কাষ্টবাড়িয়া এলাকার বাসিন্দা আওয়ামী লীগ নেতা ফিরোজ শেখকে কাষ্টবাড়িয়া মসজিদের কাছে এক দল দূর্বৃত্ত ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।

এ ঘটনায় তার স্ত্রী নাজমা বেগম বাদী হয়ে বিল্লাল ব্যপারীসহ ৬০ জনকে আসামী করে রামপাল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। এই মমলায় পুলিশ ও র‌্যাব ১০ জনকে আটক করে।

এদিকে উচ্চ আদালত থেকে আগাম জামিন নিয়ে মামলার অন্যতম আসামী বিল্লাল ব্যাপারীসহ ৯ জন এলাকায় আসে।

তারা এলাকায় আসার পর গত দুই দিন ধরে তীব্র উত্তেজনা দেখা দেয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার বেলা ৫টায় বিল্লাল ব্যাপারী ও তার সহযোগীরা ভাগা বাজার এলাকায় আসে।

এ সময় প্রতিপক্ষের লোকজনের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বিল্লাল ও তার সহযোগীরা ধারালো অস্ত্র ও রড দিয়ে পিটিয়ে সুলতানিয়া গ্রামের মতিয়ার রহমান (৫০)কে গুরুত্বর আহত করে। তাকে তাৎক্ষণিক ভাবে রামপাল থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি কর হয়।

এ সময় ধাক্কা ধাক্কিতে হাসিনা বেগম (৪৫) আহত হন।

খবর পেয়ে রামপাল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিল্লাল ব্যাপারী, ফারুক ব্যাপারী, জাহাজান ব্যপারী, রুহল আমিন ব্যপারী, আব্দুল ওদুদ, হোসেন আলী সরদার, মোঃ হোসেন আলী ও বাচ্চু সরদারকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

সাপ্তাহিক হাট-বাজারের দিন এ ঘটনা সংগঠিত হওয়ায় বাজার করতে আসা লোকজন দিকবিদিক হয়ে ছোটাছুটি করে। এ সময় সকল দোকান-পাট বন্ধ হয়ে যায়।

পুলিশ ঘটনাস্থলের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও ওই এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে।