রামপাল (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : রামপালের চাকশ্রী গ্রামের তালুকদার নাহিদ নামের এক মৎস্য খামারির পুকুরে বিষ প্রয়োগের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে ওই খামারীর বিভিন্ন প্রজাতির মাছ মরে ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নাহিদ রামপাল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার চাকশ্রী গ্রামের তালুকদার কামালের পুত্র মৎস্য খামারী তালুকদার নাহিদ পৈত্রিক পুকুরে প্রজেক্ট আকার দীর্ঘ দিন ধরে মাছ চাষ করে আসছেন। ঘটনার দিন বুধবার দিনগত রাতে একই এলাকার শেখ জাকারিয়া ও শেখ ওসমান গনি পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পুকুরে বিষ প্রয়োগ করেন।

এরপর দিন বৃহস্পতিবার পুকুরের মাছ মরে ভেসে ওঠে। খামারী নাহিদ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করলে তাদের পরামর্শে প্রতিষেধক দেন। এতে কোন কাজ না হওয়ায় তিনি পানি পরীক্ষা করে বুঝতে পারেন পুকুরে বিষ প্রয়োগ করা হয়েছে।

ঘটনার দিন রাতে পুকুর পাহারা ও খাবার দেওয়ার সময় তিনি প্রতিপক্ষ জাকারিয়া ও ওসমান গনিকে পুকুরের পাড়ে ঘোরাঘুরি করতে দেখেন। ওই সময় টর্চ লাইটের আলোতে তাদের দেখতে পান।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ওসমানের সাথে ফোনে কথা হলে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি জানান, আমি ইসলামী ব্যংকে চাকরি করি। আমি ও জাকারিয়া ছোট মানসিকতা নিয়ে চলি না। আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখুন বরং তারা আমাদের ঘের দখল করেছে। তবে তিনি শুনেছেন নাহিদের পুকুরের মাছ মারা গেছে।

এ বিষয়ে রামপাল থানার এসআই শ্রীবাস কুন্ডু’র কাছে জানতে চাইলে তিনি অভিযোগপত্র পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।