এম. এ সবুর রানা, রামপাল (বাগেরহাট) : বাগেরহাটের রামপালে জন্মের পর নবজাতককে পানিতে ফেলে হত্যা করে মৃতদেহ মাটি চাপা দেয়ার অভিরামপালে পরকীয়ার বলি : নবজাতককে পানিতে ডুবিয়ে হত্যাযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় রামপাল থানায় মামলা করেছেন প্রতিবেশী নারী আম্বিয়া বেগম।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মল্লিকেরবেড় গ্রামের জামেল হাওলাদারে পুত্র আসামী শাহাজান হাওলাদারের জামাই একই গ্রামের কালাম শেখের পুত্র আসামী আল আমীন সেখ তার চাচাত শালীকা জনৈক তরুণীর সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে ওই তরুণী ৮/৯ মাস পূর্বে গর্ভবতী হয়ে পড়েন।

ঘটনার দিন গত ১৩ মে সকল পৌনে ১১ টায় তরুণীর প্রসব বেদনা শুরু হলে চিকিৎসার জন্য গ্রাম্য চিকিৎসকের নিকট রওনা দেয়। প্রতিমধ্যে স্থানীয় কবীর রাড়ির বাড়ির সামনে বেলা সাড়ে ১১টায় ওই তরুণী একটি জীবিত পুত্র সন্তান প্রসব করে।

এরপর তরুণীর চাচা শাহাজান ও কথিত প্রেমিক আল আমীন ওই নবজাতককে পাশের খালের পানিতে ফেলে দেন। পরে নবজাতকটি মারা গেলে খালের পাড়ে মাটি চাপা দেয়।

স্থানীয়রা ঘটনা দেখতে পেয়ে প্রথমে সুমন মেম্বারকে ও রামপাল থানা পুলিশকে খবর দিয়ে ঘাতক শাহাজাহান ও আল আমীন কে সোপর্দ করেন। এলাকার বহু মানুষ ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করেন।

এ ঘটনায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনার বিষয়ে রামপাল থানার ওসি মোহাম্মদ সামসুদ্দীন এর কাছে জানতে চাইলে মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে খুব দুঃখ প্রকাশ করেন।