এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : আসন্ন রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচনে এমপিদের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে।

নিয়ম অনুযায়ী সংসদ সদস্যরা কোনো প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাইতে পারবেন না।

কিন্তু আচরণবিধি না মেনে রাজবাড়ীর দুই সংসদ সদস্য রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটারদের কাছে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়েছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গত ৬ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় প্রাঙ্গণে ভোটারদের নিয়ে এক আলোচনা সভায়। পরে সেখানে ভোটারদের জন্য মধ্যাহ্নভোজের আয়োজন করা হয়।

রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী রয়েছেন তিনজন।

এর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এ কে এম শফিকুল মোরশেদ আরুজ (তালগাছ), স্বতন্ত্র প্রার্থী দীপক কুণ্ডু (মোটরসাইকেল) ও কালুখালি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা অলিউজ্জামান চৌধুরীর ছোট ভাই মো. ইমামুজ্জামান চৌধুরী (আনারস) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দীপক কুণ্ডু জানান, সংসদ সদস্যরা আইন প্রণয়ন করেন, আবার উনারাই আইন ভঙ্গ করছেন। তিনি অভিযোগ করেন- তাকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে এবং ভয় ভিতিও দেখানো হচ্ছে।

এ ব্যাপারে প্রশাসনের কাছে তিনি তিনবার লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে দাবি করেন।

তিনি আরও বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাজবাড়ীর দুই এমপি। জেলার পাঁচটি উপজেলার সব ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের জেলা আওয়ামী লীগ অফিসে ডেকে এনে সভা করেন। সেখানে জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট চাওয়া হয়। সরকারিবিধি ভেঙে দুপুরে ভোজ করানো হয়।

নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে এমপি মো. জিল্লুল হাকিম বলেন, এটা গণভোট নয়। এ কারণে ভোট চাওয়ার সুযোগ আছে।

এ বিষয়ে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক ও জেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আবু কায়সার খান বলেন, এ নির্বাচনে সংসদ সদস্যদের কোনো প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাওয়ার সুযোগ নেই। তবে এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেননি।