এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : গতকাল শুক্রবার রাতে হঠাৎ করেই রাজবাড়ীতে পদ্মা নদীর ভয়াবহ ভাঙনে ডানতীর প্রতিরক্ষা বাঁধের প্রায় একশ মিটার নদীতে বিলিন হয়েছে।

পানি কমে যাওয়ায় নদীর পাড়ে প্রচন্ড বেগে ঘূর্ণায়মান স্রোতের টানে সি সি ব্লকের নিচের বালিমাটি সরে গিয়ে মাত্র ৩০ মিনিটের মধেই শত শত ব্লক তলিয়ে গিয়ে নদীর পার ভেঙ্গ বিলিন হয়ে যায়।

একই সাথে বাধে পারে থাকা পাঁচটি বড়ির ঘরবাড়ি ভাঙ্গনের হুমকিতে থাকায় তা সরিয়ে নেয়া হয়েছে রাতেই।

তবে এখনো ওই এলাকায় ভাঙনে হুমকিতে রয়েছে শহর রক্ষাকারী বাঁধসহ নদী পারের প্রায় ২০টি বসতবাড়ী। ফলে ভাঙন আতঙ্কে

আজ শনিবার সরিয়ে নেয়া হচ্ছে সেসব বসতবাড়ী।

শুক্রবার সন্ধ্যায় গোদার বাজারের সিলিমপুর এলাকায় এ ভাঙন শুরু হয়। এদিকে ভাঙন রোধে গত রাত থেকেই রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড বালির বস্তা ফেলে ভাঙ্গন রোধের ব্যর্থ প্রচেষ্ট করছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবাহী প্রকৌশলী আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন, আজ শনিবার ভাংগন স্থানে ৫০ হাজার জিও ব্যগ নিক্ষেপ করা হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায় চলতি বষায় এ পযন্ত ১০ লাখ বালির বস্তা ভাঙ্গন কবলিত বিভিন্ন পয়েন্টে নদীতে ফেলা হয়েছে। তবু ভাঙ্গন অব্যহত আছে।

রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী আরিফুর রহমান অঙ্কুর জানান, তারা ভাঙন রোধের চেষ্টা করছেন। সকালে কাজের গতি আরও বাড়াবেন বলে জানান।