এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে অশ্লীল গালিগালাজ, দেখে নেওয়ার হুমকি এবং একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে সভায় বেধড়ক মারধর করার জন্য রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আহম্মদ আলী মাস্টারকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বালিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুহা. আব্দুল হান্নান মোল্লা। এ বিষয়ে তিনি প্রেস বিজ্ঞপ্তিও দিয়েছেন।

রোববার (১২ জুন) বেলা ২টায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কালাম আজাদের বাসভবনের অফিস থেকে এই প্রেস বিজ্ঞপ্তিটি গণমাধ্যমকর্মীদের হাতে তুলে দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মুহা. আ. হান্নান মোল্লা।

এতে বলা হয়, গত ১১ জুন কেন্দ্রীয় দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইসলামপুর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৩ জন করে নাম প্রস্তাব আসলে উপস্থিত নেতৃবৃন্দ জেলা আ.লীগের সভাপতি ও রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জিল্লুল হাকিমের সদয় অনুমতির জন্য আমরা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে সভাস্থল ত্যাগ করি।

পরবর্তীতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত চেয়ারম্যান বিএনপি থেকে অনুপ্রবেশকারী আহম্মদ আলী ওই সভাস্থলে থাকা দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন কটূক্তিমূলক বক্তব্য প্রদান করে। এ সময় তিনি রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জিল্লুল হাকিম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কালাম আজাদ ও আমার নাম উল্লেখ করে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করে এবং দেখে নেওয়ার হুমকি প্রদান করে।

এ সময় উপস্থিত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তার এই কথার প্রতিবাদ করতে গেলে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আরিফুল ইসলামকে বেধড়ক মারধর করেন তিনি। উক্ত ঘটনায় আমরা তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। সেই সাথে আহম্মদ আলীকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। ক্ষমা না চাইলে তার বিরুদ্ধে দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।