এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : রাজবাড়ীতে পদ্মার পানি সামান্য কমলেও তা এখনও দৌলতদিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ৪৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বইছে। ফলে জেলার চরাঞ্চলের হাজার হাজার বাড়ি ঘর এখনও পানিতে ডুবে থাকায় রাস্তায় আশ্রয় নেয়া মানুষ তাদরে গবাদিপশু নিয়ে বাড়ি ঘরে যেতে পারছে না।

তবে পানি কমার সাথে সাথে জেলার পদ্মার তীরে দেখা দিয়েছে নদী ভাঙ্গন। ইতিমধ্যে রাজবাড়ী সদর, গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া দেবগ্রাম ও কালুখালির রতনদিয়া ইউনিয়নে অর্ধ শতাধিক বাড়ি-ঘর নদীতে বিলীন হয়েছে।

জেলার বিভিন্নস্থানে পানির তীব্রস্রোতে ভাঙন আতংক দেখা দিয়েছে পদ্মাপাড়ের মানুষের মধ্যে।

এদিকে দৌলতদিয়ায় পদ্মায় পানি বৃদ্ধির ফলে নদীতে ঘূর্নায়মান স্রোতের টানে দৌলতদয়িা-পাটুরিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। নদীর তীব্র স্রোতের টানে ফেরি চলতে দীর্ঘ সময় লাগছে।

আগে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ৫ কিলোমিটার নৌপথ পারি দিতে একটি ফেরির মাত্র ৪০ মিটিন সময় লাগত। এখন সেখানে সময় লাগছে এক/দেড় ঘন্টা করে। এত ফেরির ট্রিপ কমে যাওয়ায় উভয় ঘাটে নিত্যদিন যানজট লেগেই থাকছে।

আজ সোমবার ছুটির দিনে ঢাকামুখি গাড়ীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় সকাল থেকেই দৌলতদিয়া ঘাটের যানজট সৃষ্টি হয়েছে। তবে ছোট প্রাইভেট গাড়ীর চাপ অনেক বেশি।