এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : রাজবাড়ীর সদর উপজেলার বানিবহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ মিয়ার স্ত্রী মোছা. শেফালী আক্তারকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার দুপুরে রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, রাজবাড়ীতে চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রার্থী ছিলেন আব্দুল লতিফ। ১১ নভেম্বর দিবাগত রাতে নির্বাচনের প্রস্তুতিমূলক সভা শেষে বাড়ি ফেরার পথে তাকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।

নিবাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে তিনি এগিয়ে ছিলেন। তার মৃত্যুর পর মানবিক বিষয়টি বিবেচনা করে আমরা দলীয় মনোনয়নের বিষয়টি কেন্দ্রে পাঠানো হয়। প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রীসহ মনোনয়ন বোর্ড আব্দুল লতিফের স্ত্রীকে মনোনয়ন দিয়েছেন।

লতিফের স্ত্রী শেফালী আক্তার বলেন, আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়টি শুনেছি।

আমি এখন পর্যন্ত শোকাহত! তবে আমার স্বামীর কিছু স্বপ্ন ছিল এই ইউনিয়ন নিয়ে, এই ইউনিয়নের মানুষের নিয়ে। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে স্বামীর স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যাবো।

রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জিল্লুল হাকিম বলেন, সস্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত লতিফের ব্যাপক জনপ্রিয়তা ছিল। তাকে গুলি হত্যা করার পর আমরা মানবিক দিক বিবেচনা করে তার স্ত্রী নাম কেন্দ্রে প্রেরণ করেছিলাম। প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী মানবিক দিক বিবেচনা করে লতিফের স্ত্রীকে দলীয় মনোনয়ন প্রদান করেন। লতিফের স্ত্রীর দলীয় মনোনয়ন প্রমাণ করে দলীয় সভানেত্রী তৃণমূলের খোঁজ রেখেই শেফালীকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন।

আগামী ২৩ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপের নির্বাচনের ভোটগ্রহণে নিহত লতিফের স্ত্রী শেফালী দলীয় প্রতীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন।