এম. মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী প্রতিনিধি : ঘূর্ণিঝড় ‘অশনি’র প্রভাবে রাজবাড়ীতে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি পড়ছে। সকাল থেকেই দেখা মেলেনি সূর্যের। গত সোমবার সন্ধ্যা থেকে রাজবাড়ীর বিভিন্ন স্থানে বজ্রসহ বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দিনব্যাপী মাঝারি বৃষ্টি হয়েছে জেলার বিভিন্ন স্থানে।

বুধবার সকাল থেকে আবার বৃষ্টি শুরু হয়েছে। মুষুলধারে বৃষ্টির কারণে জেলার অনেক আধাপাকা বোরো ধানের মাঠে পানি জমেছে। তাতে অনেক জমির ধান পরে পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে ধান, পাটসহ বিভিন্ন স্বজি ক্ষেতের ব্যপক ক্ষতি হয়েছে।

গত কয়েকদিনের অব্যাহত বৃষ্টিতে জেলার বিভিন্ন স্থানের নিম্নাঞ্চলের জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এতে করেই ক্ষতির মুখে পড়ছেন জেলার ধান ও পাট চাষিরা। তাদের উৎপাদিত ফসল ঘরে তোলা নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এ বছর জেলায় ৪৮ হাজার ৬৭৭ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে। ১২ হাজার ৯৫৫ হাজার হেক্টর জমির বোরো ধান ঘরে তোলার অপেক্ষায় রয়েছে। বালিয়াকান্দি জামালপুর ইউনিয়নের হাতিমোহন এলাকার কৃষক মো. মিরাজ শেখ বলেন, দুইদিন ধরে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আমাদের এই মাঠের নিচে অঞ্চলের পাটে পানি বেঁধে গিয়েছে।

আজকের মধ্যে বৃষ্টি না গেলে এসব পাট পচে যাবে।

রাজবাড়ী সদর উপজেলার মাশালিয়া এলাকার কৃষক গোবিন্দ বিশ্বাস বলেন, মাঠের বোরো ধানের জমিতে পানি বেঁধে গিয়েছে। দুই দিনের বৃষ্টিতে ধানের ক্ষতি হয়েছে। নিচু অঞ্চলের জমির পাট নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। বৈরী আবহাওয়ার কারণে আমারা কয়েক বছর ধরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এমএম শহীদ নূর আকবরের দাবি, বৃষ্টিতে রাজবাড়ীর কৃষির কিছু জমির সমস্যা হয়েছে। তবে বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে কৃষিতে ব্যপক ক্ষতি হতে পারে।