মিজানুর রহমান মিজান, রংপুর অফিস : রংপুরে বিয়ের দাবিতে শারাফাত হোসেন সোহাগ নামের এক ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন এক তরুণী (২২)। এ ঘটনায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছে।

সোমবার (১ আগস্ট) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের হারাগাছ থানার ওসি রেজাউল করিম। এর আগে শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ পৌর এলাকার মিয়াপাড়ায় শারাফাতের বাসায় অবস্থান নেয় ওই তরুণী।

ওই তরুণী রংপুর সরকারি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। পাশাপাশি রংপুর আইন কলেজে প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত। প্রেমিক শারাফাত হোসেন সোহাগ মোশাররফ হোসেনের ছেলে এবং হারাগাছ সরকারি কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র। এছাড়া তিনি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি।

বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেওয়া তরুণী জানান, প্রায় দেড় বছর ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কেও হয়। একপর্যায়ে বিয়ের জন্য চাপ দিলে প্রেমিক সোহাগ টালবাহানা করতে থাকেন। এ অবস্থায় তিনি জানতে পারেন সোহাগ অন্য জায়গায় বিয়ে করেছেন। উপায় না পেয়ে শনিবার বিকেলে সোহাগের বাড়িতে গিয়ে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন তিনি।

এ সময় সোহাগের পরিবারের সদস্যরা তাকে মারধর করে বলেও অভিযোগ করেন তরুণী। এদিকে ঘটনার পর থেকে গা-ঢাকা দিয়েছেন সোহাগ। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তরুণীকে থানায় নিয়ে যায়।

হারাগাছ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, সোহাগ হারাগাছ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি। যদি তিনি সংগঠন বিরোধী কোনো কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকেন তাহলে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের হারাগাছ থানার ওসি রেজাউল করিম বলেন, নিরাপত্তার স্বার্থে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে। ভোক্তভোগী বাদী হয়ে হারাগাছ থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন।