রংপুর অফিস : মহামারী করোনা প্রকোপের কারণে দীর্ঘ ২ বছর পর সারাদেশের মতো এবার উত্তরের বিভাগীয় নগরী রংপুরেও ঈদগাহ মাঠে পবিত্র ঈদ-উল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এবার রংপুর নগরীতে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় রংপুর কালেক্টরেট জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে ইতোমধ্যে রংপুর নগরীসহ জেলায় ঈদের জামাত আদায়ের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। পাড়া মহল্লার ঈদগাহ মাঠের প্রবেশ মুখে নির্মাণ করা হচ্ছে বর্ণিল গেট। কোথাও কোথাও সড়কে নির্মাণ করা হচ্ছে তোরণ।

রোববার (১ মে) সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রংপুর নগরীর প্রধান ঈদগাহ ময়দান কালেক্টরেট ঈদগাহ ময়দান সাজানো হচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রবেশ গেট নির্মাণ করা হয়েছে। ময়দানের ভিতরে সামিয়ানা তৈরীর কাজ চলমান রয়েছে। এ ঈদগাহ ময়দানে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রায় ২০ থেকে ২৫ হাজার মুসল্লি পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাতে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন রংপুরের পরিচালক মুহাম্মদ আবুল কালাম। তিনি জানান, রংপুরে ঈদের প্রধান জামাত সাড়ে ৮টায় কালেক্টরেট ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে। সম্প্রতি জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সিদ্ধান্ত এ নেওয়া হয় বলে জানান তিনি।

এদিকে জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে, তবে আবহাওয়া খারাপ থাকলে কিংবা বৃষ্টি হলে সকাল ৯টায় মডেল মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।

এবারে রংপুর পুলিশ লাইন মাঠে ঈদের জামাত হবে না তবে সকাল ৮টায় জেলা পুলিশ লাইন্সের ভিতরে ঈদের নামাজ হবে। সদর মসজিদ মাঠ,বাহার কাছনা সিগারেট কোম্পানির ঈদগা মাঠ, পশ্চিম নীলকন্ঠ ঈদগাহ মাঠ, মুন্সিপাড়া ঈদগাহ,রংপুর মেডিকেল কলেজ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সংলগ্ন ঈদগাহ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায় এবং বড়বাড়ি ঈদগাহ, দামুদরপুর বড় ঈদগাহ মাঠে সকাল ৯টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও নগরী ও জেলার বিভিন্ন এলাকার বেশিরভাগ ঈদগাহ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সকাল ৯টার মধ্যে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে ঈদকে ঘিরে পুরো রংপুর নগরীর গুরুত্বপূর্ণ ঈদগাহ ময়দানসহ নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। সড়ক পথে শৃঙ্খলা ফেরাতে রয়েছে পুলিশ চেকপোস্ট। ঈদে মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কয়েক স্তরের নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তাবলয় তৈরি করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এব্যাপারে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা নগরবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, করোনা মহামারীর সংকট কাটিয়ে ২ বছর পর এবার সারাদেশের ন্যায় রংপুরেও ঈদের জামাত ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে ইনশাআল্লাহ। এজন্য রংপুরের প্রধান ঈদগাহ ময়দান কালেক্টরেট ময়দানের সাজসজ্জার কাজ চলছে। মুসল্লীরা যাতে সুষ্ঠুভাবে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাতে নামাজ আদায় করতে পারেন সে বিষয়ে সকল প্রকার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

রংপুর জেলা ও মহানগরীতে এই ঈদ উৎসবকে নির্বিঘ্ন করতে পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা ও মেট্রোপলিটন পুলিশ। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী (৩-৫-২২) বিপুল উৎসাহ-উদ্দিপনা ও ধর্মীয় ভাব গাম্ভির্যের মধ্যদিয়ে বিভাগীয় নগরী রংপুরসহ উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উদ্যাপনের জন্য বিস্তারিত কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে সকালে সরকারি-বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে।

ঈদ উপলেক্ষে সিটি করপোরেশন নগরীর সড়ক ও সড়ক দ্বীপসমুহ জাতীয় পতাকা ও ঈদ মোবারক লেখা পতাকা দিয়ে সু-সজ্জিত করেছে। রংপুরের ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে কালেক্টরেট ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৮ টায়। বৃস্টি হলে ঈদের প্রধান জামাত হবে রংপুর মডেল মসজিদে। একই সময়ে মুন্সিপাড়া ঈদগাহে ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া হযরত মওলানা কেরামত আলী (রহঃ) মাজার সংলগ্ন কেরামতিয়া মসজিদে ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৯টায়। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় এবারে জেলার ৫ হাজার ৯০টি মসজিদ সংলগ্ন এলাকার ঈদগাহ ও খোলা মাঠে ঈদের নামাজের সময় সূচী নির্ধারন করা হয়েছে। ঈদ জামাত গুলোতে প্রাণঘাতি রোগবালাই ও বিপর্যয় থেকে মুক্তি লাভ সহ দেশ ও জাতির শান্তি,সমৃদ্ধি ও কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হবে। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দিনের অন্যান্য কর্মসূচিতে রয়েছে- হাসপাতাল-এতিমখানা, কারাগার ও শিশু পরিবারগুলোতে বিশেষ খাবার পরিবেশন। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ অন্যান্য বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ও রেডিও স্টেশনগুলো মুসলমানদের বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা প্রচার করবে।