খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ছড়াচ্ছে ভয়ংকরভাবে। রাজ্যগুলির হাসপাতালে বেড খালি নেই। চিকিৎসক ও চিকিৎসাকর্মীর সংকট দেখা দিয়েছে। এই ভয়ংকর পরিস্থিতি সামাল দিতে কিছু ঘোষণা করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

বাইডেন জানিয়েছেন, এক হাজার সেনা চিকিৎসক ও চিকিৎসাকর্মীকে বিভিন্ন রাজ্যে পাঠানো হবে। তিনি জানিয়েছেন, করোনা মোকাবিলায় এবার দেশের সেনাবাহিনী হাসপাতালগুলিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবে।

তাছাড়া বাইডেন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, আমেরিকার মানুষকে বিনাপয়সায় ভালো মানের মাস্ক দেয়া হবে। করোনা পরীক্ষা করার জন্যও তাদের কোনো অর্থ দিতে হবে না।

বাইডেন বলেছেন, ”আমি জানি, নতুন বছরের গোড়ায় আমরা সকলেই হতাশ। তবে মনে রাখতে হবে, যারা টিকা নেননি, এবার তারাই বেশি করে আক্রান্ত হচ্ছেন।”

এখনো পর্যন্ত ৬২ শতাংশ মানুষই টিকা নিয়েছেন। বাকিরা নেননি। বারবার অনুরোধ করেও তাদের টিকা দেওয়াতে পারেনি প্রশাসন।

বাইডেন জানিয়েছেন, সকলের জন্য উঁচুমানের মাস্কের ব্যবস্থা করা হয়েছে। অবশ্য এক তৃতীয়াংশ আমেরিকান মাস্ক ব্যবহার করে না বলে সমীক্ষা জানাচ্ছে।

প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ৫০ কোটি দ্রুত করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।

বাইডেন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, যে সব প্রতিষ্ঠানে একশর বেশি কর্মী আছে, সেখানে কর্মীদের হয় ভ্যাকসিন নিতে হবে, নাহলে প্রতি সপ্তাহে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট এই সিদ্ধান্ত খারিজ করে দিয়ে বলেছে, এর ফলে বিপুল সংখ্যক কর্মীর জীবন ও স্বাস্থ্যের বিষয়ে সরকার হস্তক্ষেপ করবে।

বাইডেন জানিয়েছেন, তিনি এই রায়ে খুবই হতাশ। কারণ, সাধারণ জ্ঞানই বলছে, কর্মীদের বাঁচাতে এই ব্যবস্থা নেয়া দরকার।

দেশের ৭৬ হাজার সংস্থায় কর্মরত এক কোটিরও বেশি কর্মীকে এইভাবে ভ্যাকসিন দিতে চেয়েছিলেন বাইডেন। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে আপাতত তা সম্ভব হচ্ছে না।