বগুড়া অফিস : বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার যমুনা নদীতে নিখোঁজ কৃষকের ৫দিনেও সন্ধান মেলেনি। কৃৃষকের লাশের সন্ধানে কাজ করেছেন সারিয়াকান্দি ফায়ার সার্ভিসের নেতৃত্বে রাজশাহী ডুবুরি দল। সন্ধান না পেয়ে কৃষকের পরিবার কাঁদছে। নিখোঁজ কৃষক সারিয়াকান্দি উপজেলার বোহাইল ইউনিয়নের শংকরপুর চরের ময়েজ মন্ডলের ছেলে মোজাম মন্ডল (৫০)।

গত শুক্রবার সকালে মোজাম মন্ডল গরুর জন্য ঘাস সংগ্রহের উদ্দেশ্য শংকরপুর যমুনা নদী পাড়ি দিয়ে পাশের চরে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে তার ঘাসের ভারসহ পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়েছেন। নদীতে পানির গভিরতা ছিল ৬ হতে ৭ ফিট। তথ্যগুলো জানিয়েছেন সারিয়াকান্দি ফায়ার সার্ভিসের অপারেশন টিম লিডার মোঃ ময়েজ উদ্দিন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ইউ পি সদস্য জয়নাল হোসেন।

নিখোঁজ মোজামের ছেলে কৃষক আইয়ুব আলী (২৪) জানান, গত শুক্রবার আমার বাবা যমুনা নদীতে নিখোঁজ হয়েছেন। আমার চাচাত ভাই রেজাউল বাবাকে পানিতে ডুবে যেতে দেখে আমাদের খবর দেয়। গত কয়েকদিন ধরে যমুনা নদীতে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও আমার বাবাকে পাইনি। রাজশাহী থেকে ডুবুরি দল এসেও অনেক খোঁজাখুঁজির পর তারা চলে গেছে।

সারিয়াকান্দি ফায়ার সার্ভিসের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন অফিসার মোজাম্মেল হক জানান, শনিবার সকালে সংবাদ পেয়ে উদ্ধারকারী দলকে ঘটনাস্থলে প্রেরণ করা হয়েছিল। নিখোঁজ ব্যক্তির সন্ধানে রাজশাহী ডুবুরি দলকে জানানো হয়েছিল। তারা এসে নিখোঁজ ব্যক্তিকে উদ্ধার করার জন্য অনেক চেষ্টার পর গত সোমবার রাজশাহী ফিরে গেছেন।