ময়মনসিংহ অফিস : ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার কাটাখালি থেকে মস্তকবিহীন নারীর লাশ উদ্ধারের তিন দিন পর বৃহস্পতিবার দুপুরে পার্শ্ববর্তী ডোবা থেকে ওই নারীর খন্ডিত মাথা উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

এর আগে বুধবার রাতে হত্যাকারি প্রেমিক সেলিম মল্লিককে (৩০) আটক করে র‌্যাব-১৪।

আটক সেলিমের দেখানো ডোবা থেকে খন্ডিত মাথাটি উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-১৪ এর সিও উইং কমান্ডার রুকুনুজ্জামান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উদ্ধার অভিযান শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি জানান, গত ২ জানুয়াারি ত্রিশাল উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের কাটাখালি গ্রামে অজ্ঞাত এক নারীর মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় ত্রিশাল থানায় একটি মামলা হয়। র‌্যাব-১৪ ওই মামলার তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষন করে ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে সেলিম নামে একজনের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত করে। এরপর র‌্যাব অভিযান চালিয়ে ৫ জানুয়ারি রাতে ত্রিশাল উপজেলার কাটাখালি গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে সেলিম মল্লিককে (৩০) আটক করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সেলিম ওই নির্মম হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করে এবং কী ভাবে ঘটিয়েছে তার বর্ণনা দেয়।

তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সকালে র‌্যাব সদস্যরা ত্রিশালের কাটাখালী গ্রামে যায় এবং সেলিমের দেখানো ডোবা থেকে খন্ডিত মাথাটি উদ্ধার করে।

হত্যাকারি সেলিম র‌্যাবকে জানায়, নিহত নারী সুলতানা বেগমের বাড়ি রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার চেংমারী গ্রামে। চাকুরি সূত্রে সুলতানা গাজীপুরে বসবাস করতো। সেলিমের সাথে প্রথমে মোবাইল ফোনে সুলতানার কথা হয়। পরবর্তীতে দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

এরপর থেকে দু’জন প্রায়ই একে অপরের সাথে দেখা করতো। এক পর্যায়ে সুলতানা বিয়ের জন্য চাপ দিলে সেলিম তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে। লাশের পরিচয় গোপন করতে দেহ থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করে ওই ডোবায় লুকিয়ে রাখে। সেলিমের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন র‌্যাব কর্মকর্তা।