মিজানুর রহমান মিজান, রংপুর অফিস : মোটরসাইকেলে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে নিয়ে যাচ্ছিলেন গাইনি চিকিৎসকের কাছে। পথিমধ্যে বাসচাপায় নিহত হয়েছেন স্ত্রী আসমা বেগম। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে রংপুুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মূত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে হতভাগা স্বামী রফিকুল ইসলাম।

সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে নয়টার দিকে রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার দামোদারপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম মোটরসাইকেলযোগে তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আছমা বেগম (৩৫)কে চিকিৎসার জন্য গাইনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার জন্য রংপুরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে রংপুরের লাহিড়ীরহাটের কাছে বদরগঞ্জ রোডে একটি দ্রুতগামী বাস রংপুরগামী মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীসহ স্বামী রফিকুল গুরুতর আহত হন।

স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসকরা স্ত্রী আছমা বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন এবং হতভাগা স্বামী রফিকুলকে গুরুতর আহত অবস্থায় রমেক হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে তার। অবস্থাও সংকটাপন্ন বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান দুর্ঘটনার খবরটি নিশ্চিত করে বলেন, দামোদারপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে নিয়ে রংপুরের উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় লাহিড়ীরহাটের কাছে বদরগঞ্জ গামী একটি যাত্রীবাহি বাসের সাথে ধাক্কা লেগে গুরুতর আহত অবস্থায় স্বামী-স্ত্রীকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত হয়ে স্বামী রফিকুল রমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বাসটির চালক ও সহকারী ঘটনাস্থলে বাসটি রেখে পালিয়েছে। বাসটি পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।