মেহেরপুর প্রতিনিধি : মেহেরপুর সদর উপজেলার হরিরামপুর মাঠে তোফাজ্জেল হোসেন বিশ্বাস (৪৫) নামে এক ছাগল ব্যাবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে।

রোববার দিবাগত রাতের কোন এক সময় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। সোমবার দুপুরে গ্রামের উত্তর মাঠে কৃষকরা লাশটি দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। তোফাজ্জল হোসেন বিশ্বাস হরিরামপুর গ্রামের বক্স বিশ্বাসের ছেলে।

তোফাজ্জেল হোসেনের স্ত্রী মনিতাজ খাতুন জানান, রোববার সন্ধ্যায় বিবাহ সম্পর্কিত (ঘটকালি) বিষয় নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে ফিরে আসেননি তিনি। রাতে বিভিন্ন যায়গায় খোঁজ করেও তাকে পাওয়া যায়নি। সোমবার দুপুরে কৃষকরা মাঠে গিয়ে লাশ পড়ে থাকতে দেখে আমাদের খবর দেয়। মাঠে গিয়ে দেহ থেতলানো লাশটি পাই। পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। তবে কি কারণে হত্যা করা হয়েছে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি তিনি।

মনিতাজ আরো জানান, আমার জানা মতে তার কোন শত্রু ছিল না। ব্যবসা করে সংসার চালাতো। বিকেলের দিকে বাড়ির চারটি মহিষ আছে যা মাঠে চড়াতো, গোসল করানো খাবার সংগ্রহ নিজেই করতো। আমি এ হত্যাকান্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

বুড়িপোতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ শাহজামান বলেন, তোফাজ্জেল হোসেন একজন সাদাসিধে মানুষ ছিলেন। ব্যাবসা করে জিবিকা নির্বাহ করতো। এমন হত্যাকান্ড ন্যাক্কারজনক। হত্যাকান্ডের বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করছে আশা করছি দ্রুতই ঘাতকদের ধরতে সমর্থ হবে পুলিশ।

মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ শাহ দ্বোরা খাঁন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। লাশ উদ্ধার করে মর্গে নিয়ে ময়না তদন্ত করা হয়েছে। কারা কি কারণে তোফাজ্জেলকে হত্যা করেছে তা এখনও নিশ্চিত নই। ধারণা করা হচ্ছে কারো ব্যাক্তিগত কোন আক্রোশ বা রাগ থেকে তোফাজ্জল হোসেন বিশ্বাসকে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকারীদের ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। আশা করছি শিঘ্রই এ হত্যা কান্ডের রহস্য উন্মোচন করতে পারবো।