মেহেরপুর প্রতিনিধি : মেহেরপুর কোর্ট জামে মসজিদ মার্কেটের ২৫ টি দোকান ভেঙে দেওয়ার প্রতিবাদে মেহেরপুর হোটেল বাজারের ব্যবসায়ীরা কাফনের কাপড় পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছেন। ৫ দিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে রোববার সকাল ১১টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত দোকান বন্ধ রেখে এ কর্মসূচীতে অংশ নেন তারা। এ কর্মসূচীর সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে কর্মসূচীতে অংশ নেন মেহেরপুর শিল্প ও বণিক সমিতির সদস্যরা।

হোটেল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুল হান্নান এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক জাহিদ ইকবাল শিমন, মেহেরপুর শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক হাজী গোলাম রসুল, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম বকুল।

সাধারণ সম্পাদক জাহিদ ইকবাল শিমন কর্মসূচীতে অংশ নেয়া ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, মেহেরপুর জেলা প্রশাসক ও এসেল্যান্ড-এর কাছে আপনারা কোন ধরণের পণ্য বিক্রি করবেন না। উনারা কিভাবে চলেন তা আমরা দেখবো।

হাজী গোলাম রসুল বলেন, ১৫ জুন মেহেরপুর পৌরসভা ও চারটি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনকালীন সময়ে ব্যবসায়ীদের ২৫টি দোকান ভেঙে দেওয়া গুরুতর অপরাধ। এ ঘটনার জন্য নির্বাচনের উপর প্রভাব পড়লে আপনারা দায়ি থাকবেন।

জেলা প্রশাসক ও উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া এসি ল্যান্ডকে উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, ২৫টি ঘরের মধ্যে একটি মেহেরপুর মহিলা আওয়ামী লীগের অফিস ছিল। যেখানে জাতির জনক ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছবি টানানো ছিল সেটিও আপনারা ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে এ দেশ স্বাধীন হতো না। স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছেন বলেই আজ আপনারা ডিসি ও এসিল্যান্ড হয়েছেন। আপনারা কি বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর চেয়েও পাওয়ারফুল লোক হয়ে গেছেন? আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। নির্বচানের আগেই ২৫ ব্যবসায়ীকে পুনর্বাসনের জন্য সুষ্ঠু ও ফলপ্রসু আলোচনার ব্যবস্থা নিতে আহবান জানান তিনি। সুষ্ঠু সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে বলেও জানান বক্তারা।

উল্লেখ্য, গত ৭ জুন মঙ্গলবার মেহেরপুর শহরের কোর্ট জামে মসজিদের অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য মসজিদের জায়গায় কোর্ট মোড়ের অবৈধ ২৫টি দোকান উচ্ছেদ করে জেলা প্রশাসন। এর প্রতিবাদে হোটেলবাজার ব্যবসায় সমিতি উচ্ছেদকৃত ব্যবসায়ীদের পুর্নবাসন ও ক্ষতিপূরণের দাবীতে আন্দোলন করে আসছেন।