মেহেরপুর প্রতিনিধি : পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না থাকায় মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলায় ৯টি ইট ভাটায় অভিযান চালিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর। অভিযানে ভাটা মালিকদের নিকট থেকে ১৭ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় হয়েছে। এ সময় আয়ান ব্রিকস নামের একটি ইট ভাটার আংশিক ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে খুলনা পরিবেশ অধিদপ্তরের উদ্যোগে এই অভিযান চালানো হয়।

খুলনা পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসিফুর রহমানের নেতৃত্বে এ অভিযানে মুজিবনগর উপজেলার ভবানীপুরে গাজী ব্রিকসে ২ লাখ ১০ হাজার টাকা, জবা ব্রিকসে ২ লাখ ১০ হাজার টাকা, গোপালনগরে বিবিই ব্রিকসে ২ লাখ ১০ হাজার টাকা, মোনাখালীতে এমএনবি ব্রিকসে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, এমএনসি ব্রিকসে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, শাপলা ব্রিকসে ২ লাখ টাকা, গৌরীনগরে মুকুল ব্রিকসে ২ লাখ টাকা, দারিয়াপুরে হীরা ব্রিকসে ২ লাখ টাকা, ডালিম ব্রিকসে ২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৩ সংশোধিত ২০০৯ এর ৬ ও ৮ ধারায় ইটভাটা মালিকদের জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশিফুর রহমান জানান, মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলায় বিভিন্ন ইটভাটাতে অভিযান পরিচালনাকালে ভাটাগুলোতে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না থাকা, অবাধে কাঠ পোড়ানো, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিকটস্থ স্থানে এবং ফসলী জমি ধংস করে ইটভাটা তৈরি করার অপরাধে ৯টি ইটভাটা মালিকের নিকট থেকে ১৭ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এ সময় একটি ভাটা আংশিক উচ্ছেদ করা হয়েছে। এই অভিযান পর্যায়ক্রমে জেলার সব উপজেলায় পরিচালিত হবে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (কুষ্টিয়া) আতাউর রহমান জানান, মেহেরপুর জেলায় ৯৩টি ইটভাটার মধ্যে ১টি মাত্র ভাটার পরিবেশের ছাড়পত্র রয়েছে। অবৈধ এই সমস্ত ইটভাটা বন্ধে স্থানীয় প্রশাসনকে তালিকা দিয়েও ব্যবস্থা না নেওয়ায় এই অভিযান শুরু হয়েছে।