মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে কাভার্ডভ্যান চাপায় নিহত আপন দুই সহোদর সিএনজি চালক শেখ ফরিদ এবং শেখ জাহিদ সুমনের পরিবারের খোঁজ খবর নিয়েছেন মিরসরাই সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের গড়িয়াইশ গ্রামের বাড়িতে গিয়ে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। এসময় নিহতের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মিরসরাই প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এনায়েত হোসেন মিঠু, উত্তর জেলা ছাত্রলীগের নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক পারভেজ রবিসহ নেতৃবৃন্দরা।

সাইফুল ইসলাম নিহতের পরিবারের সকলের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেন, ভবিষ্যতে আমি শেখ ফরিদ এবং শেখ জাহেদ সুমনের সন্তানদের পড়া-লেখাসহ যাবতীয় খরচসহ যেকোন বিষয় আমাকে বললেই আমি আমার সাধ্যমতে সহযোগিতা করবো।

প্রসঙ্গত, বুধবার রাত ১১টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের সোনা পাহাড় ফিলিং স্টেশনের রায়পুর এলাকায় একটি লরির পেছনে ধাক্কা দেয় চট্টগ্রামমুখী জোনাকি পরিবহনের একটি বাস। এসময় উভয় গাড়ির চালকের সঙ্গে বাকবিতন্ডা চলছিল। খবর পেয়ে সেখানে হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়।

তখন এলাকার লোকজন ও স্থানীয় অটোরিকশা চালকরা দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এ সময় ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী একটি কাভার্ডভ্যান এসে দাঁড়ানো সবাইকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে ৪ জন নিহত হন। এ ছাড়া হাইওয়ে থানা পুলিশের এএসআই ও কনস্টেবলসহ ৬ জন আহত হন।

এ ঘটনায় পুলিশের টিএসআই সাইফুল ইসলাম বাদি হয়ে ৩ গাড়ি চালককে আসামী করে জোরারগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।