মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে ২০ যাত্রী আহত হয়েছে। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনাফুনী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের কর্মীরা এসে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। আহত তিনজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- আছিয়া বিবি (২০), ফিরোজা বেগম (৫০) লিপি বিবি (২২)। বাকিদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শুক্রবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের বাদামতলী এলাকার ফেনাপুনি ব্রিজের দক্ষিণে রবিশাল-চট্টগ্রাম রুটের সৌদিয়া পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইলেন্ডে উল্টে পড়ে। বাসযাত্রীদের আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা উদ্ধারে এগিয়ে আসেন। পবরর্তীতে খবর পেয়ে মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশন কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে মিরসরাই সদরের বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠায়।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশন এর কর্মকর্তা ইমাম হোসেন পাটোয়ারি বলেন, বাস দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে এসে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় আহতদের উদ্ধার করেছি।

জোরারগঞ্জ হাইওয়ে থানার ইনচার্জ মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, মহাসড়কের ফেনাপুনি এলাকায় বরিশাল থেকে চট্টগ্রামগামী একটি বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে উল্টে গেলে বেশ কিছু যাত্রী আহত হয়। দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

মিরসরাইয়ে ছেলেকে নিয়ে বাড়ি ফেরা হলোনা শাহানার ছেলের রোগ নির্ণয়ের জন্য ডায়াগানস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরা হলো না শাহানা বেগম (৪০) এর। ছেলের সামনে ঘাতক হাইচ কেড়ে নিলো তার জীবন প্রদীপ। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের মিরসরাই পৌর সদরের ডাক বাংলোর সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শাহানা মিরসরাই পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড গোভনিয়া গ্রামের বাসিন্দা ও পৌর বাজারের ব্যবসায়ি নুর আহম্মদ মেস্ত্রী বাড়ির আবুল মনছুরের স্ত্রী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার মিরসরাই সদরের সমকাল ডায়াগানস্টিক সেন্টারে ছেলের রোগ নির্ণয়ের জন্য টেস্ট করিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সংস্কার কাজের জন্য যানজটের সৃষ্টি হয়। যানজটের সময় সড়ক পার হতে গিয়ে একটি হাইচবাস চাপায় শাহানা গুরত্বর আহত হয়। আশাপাশের লোকজন উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

মিরসরাই পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জহির উদ্দিন দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, যানজটের সময় রাস্তা পার হওয়ার সময় গাড়ি চাপায় ছেলের চোখের সামনে মারা যাওয়া খুবই মর্মন্তিক। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯ টায় জানাযা শেষে দাফন করা হয়েছে।