মিরসরাই প্রতিনিধি : মিরসরাইয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ একজনকে গ্রেফতার করেছে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ। এই ঘটনায় ভুক্তভোগী প্রবাসী আব্দুল কাদের খোকার স্ত্রী বাদি হয়ে জোরারগঞ্জ থানায় ৩ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মঙ্গলবার (২১ জুন) রাতে অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামি হারুনর রশীদ (৪৫)কে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত হারুন জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড নন্দনপুর এলাকার জাগির হোসেন সওদাগর বাড়ির মো. রুহুল আমিনের পুত্র। এ ছাড়া তার অপর দুই সন্তান মো. ফারুক হোসাইন (৪০) ও মো. আনিসুর রহমান আনিস (৪০)কে আসামি করা হয়েছে।

মামলার বাদি একই এলাকার প্রবাসী আব্দুল কাদের খোকার স্ত্রী সুরমা আক্তার সুুমি।

তিনি বলেন, গত ৯ মাস পূর্বে আমার ঘরের কাজ শুরু করি। কাজ শুরুর পর থেকে হারুন অর রশীদের নেতৃত্বে তার অপর দুই ভাই সহ এসে আমার কাছে চাঁদা দাবি করে। এ ছাড়াও তারা আমাকে বলে আপনাদের ঘরের ইট, বালু , সিমেন্ট ও মিস্ত্রি সহ যাবতীয় সব কিছু আমাদের মাধ্যমে হবে। আমরা যদি কোন মালামাল না দিতে পারি তাহলে মালামাল আনার আগে আমাদের টাকা দিতে হবে। এই পর্যন্ত আমি তাদেরকে ২ লক্ষ টাকার চাঁদা দিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, হারুন বিভিন্ন সময় আমাকে হুমকি দিয়েছে, যদি তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করি তাহলে জেল থেকে এসে আরো ভয়ানক রূপে পরিণত হয়ে আমাদের ক্ষতি করবে এই ভয়ে প্রথম থেকে আইনের আশ্রয় নেইনি। সে আরো বলে ওসি আসার আগে আমাকে ফোন দিয়ে আসবে।

সুুমি আরো বলেন, আমার স্বামী প্রবাসে থাকে। আমি আমার ২ ছেলে ও ১ মেয়েকে নিয়ে সবসময় ভয়ের মধ্যে থাকি। এ ছাড়া সবসময় ঘরের দরজা বন্ধ করে রাখি।

জোরারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুর হোসেন মামুন বলেন, হারুন নামে একজনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা থাকায় তাকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।