মিরসরাই প্রতিনিধি : মিরসরাইয়ে এক প্রতিবিন্ধির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার বারইয়ারহাট পৌরসভার কদমতলা এলাকায় গাজী এন্টারপ্রাইজ নামক প্রতিষ্ঠানে এই ঘটনা ঘটেছে।

হামলায় প্রতিষ্ঠানে থাকা প্রতিবন্ধি নিয়াজ মাহমুদ আয়মান (১৩) আহত হয়। হামলা ও লুটপাটের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ দিদার উল করিম বাদি হয়ে ৪ জনের উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৫ জনসহ জোরারগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন।

দিদার উল করিম অভিযোগ করেন, আমি ও আমার ছেলে শারীরিক প্রতিবন্ধি। তারপরও আমি সমাজের কাছে হাত না পেতে ব্যবসা বাণিজ্য করে সংসার চালাই। বারইয়ারহাট পৌরসভার কদমতলা এলাকায় ভাড়া ঘরে গাজী এন্টারপ্রাইজ নামে আমার একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

গত ১ জুন ঘরের মালিক নিলুফা আক্তার ও দুলাল মিয়া থেকে ১ লাখ টাকা অগ্রিম দিয়ে মাসে ২ হাজার টাকায় ভাড়ায় আগামী ৩ বছরের জন্য চুক্তিনামা করে ব্যবসা করে যাচ্ছি। কিন্তু কিছুদিন আগে থেকে ঘরের মালিক চুক্তিনামা অস্বীকার করে আমাকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে চলে যাওয়ার জন্য চাপ দেয়।

চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে আমি প্রতিষ্ঠান ছাড়তে অপারগতা প্রকাশ করলে আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছে। গত মঙ্গলবার দুপুরে আমি ব্যবসায়িক কাজে বাইরে ছিলাম। প্রতিষ্ঠানে আমার ১৩ বছরের প্রতিবন্ধি ছেলে আয়মান ছিল।

ওইদিন দুপুরে নিলুফা ও দুলাল মিয়ার নির্দেশে অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে একদল সন্ত্রাসী আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। বাঁধা দিতে চাইলে আমার ছেলেকে মারধর করে।

এ সময় দোকানের ক্যাশে থাকা ৫ লাখ টাকা, দুটি মোবাইল সেট নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় প্রতিষ্ঠানের সামনে থাকা আমার ব্যবহত মোটরসাইকেলও ভাংচুর করে এবং দোকানের ভেতর থাকা মালামাল বাইরে ফেলে দেয়। পরে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এই বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে জোরারগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছি।

এ বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) রতন বলেন, গাজী এন্টারপ্রাইজ নামের একটি দোকান ভাংচুরের ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। উভয় পক্ষকে ডেকে স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা চলছে।