মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পপি সিকদার (১৮) নামে এক সন্তানের জননীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী সাগর হাওলাদারের বিরুদ্বে। বুধবার (২৩ নভেম্বর) সকালে উপজেলার উত্তর মঠবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর থেকে সাগর পলাতক রয়েছে। সে উত্তর মঠবাড়িয়া গ্রামের লিটন হাওলাদারের ছেলে।

নিহত পপির বাবা গৌতম জানান, গত ৪ বছর পূর্বে ৮ম শ্রেনীতে পড়–য়া তার মেয়ে পপি স্কুলে যাওয়ার পথে সাগর জোর পূর্বক তুলে নিয়ে বিয়ে করেন। বিয়েতে তার পরিবার রাজি না থাকলেও তাদের দাম্পত্য জীবনে পুএ সন্তান হওয়ায় মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে মেনে নেই। কিন্তু সাগর নেশাগ্রস্ত হওয়ায় প্রায়ই পপিকে মারধর করত। সস্প্রতি পপিকে মারধর করে আমার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। দুই দিন আগে আমার ছেলে অপু মেয়েটাকে জামাই বাড়ি দিয়ে আসে। সাগর আমার মেয়েকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করেছে।

নিহত পপির ভাই অপু সিকদার জানান, গত দুই দিন আগে আমি আমার বোনকে তার স্বামীর বাড়িতে দিয়ে আসি সকালে খবর পাই পপি মারা গেছে।

মটবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, খবর পেয়ে ঘটনা স্তল থেকে পপির লাশ উদ্বার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।