ঘটনায় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী নিরাপত্তা বাহিনীর গাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া

খোলাবার্তা২৪ ডেস্ক : ভারতের নাগাল্যান্ড রাজ্যে কয়লা শ্রমিকদের বহনকারী একটি ট্রাকে বিদ্রোহী সন্দেহে গুলি ছোঁড়ে নিরাপত্তা বাহিনী৷ এতে ছয়জন শ্রমিক নিহত হন। এর প্রতিবাদে গ্রামবাসীর বিক্ষোভে গুলি চালালেও সেখানে সাতজন নিহতের ঘটনা ঘটে৷

শনিবার ভারতের উত্তরপূর্বের রাজ্য নাগাল্যান্ডের মিয়ানমার সীমান্তবর্তী অঞ্চলে এ দুটি ঘটনায় সেনাদের গুলিতে অন্তত ১৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে৷ সন্ধ্যায় প্রথম ঘটনায় গুলি চালানো হয় কয়লা খনি থেকে ফেরা শ্রমিকদের বহনকারীর একটি ট্রাক লক্ষ্য করে৷

বার্তা সংস্থা এপিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সেনা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এলাকাটিতে বিদ্রোহীরা চলাচল করতে পারে এমন গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ট্রাকটিকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে আধা-সামরিক বাহিনী৷ এতে মৃত্যু হয় ট্রাকে থাকা ছয় শ্রমিকের৷

এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷

এই ঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়ে গ্রামবাসী পরবর্তীতে দুটি সেনা ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দেয়৷ সেনা সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়লে সেখানে আরো সাতজনের মৃত্যু হয় বলে জানান ঐ কর্মকর্তা৷

এক বিবৃতিতে সেনাবাহিনী দাবি করেছে বিদ্রোহী গোষ্ঠীর চলাচল সম্পর্কিত ‘বিশ্বাসযোগ্য গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে’ সেখানে কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছিল সেনা ইউনিটটি৷ তবে ট্রাকে গুলি ও তার পরবর্তী ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় যা ঘটেছে তাতে সেনাবাহিনী ‘অনুতপ্ত’ বলে উল্লেখ করা হয়েছ বিবৃতিতে৷ এই ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত ও আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছে তারা৷

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ নাগাল্যান্ডে অটিংয়ে নিরীহ গ্রামবাসীর মৃত্যুতে ‘ক্ষুব্ধ’ বলে জানিয়েছেন৷ নিহতদের পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে তিনি বলেন, রাজ্য থেকে গঠিত তদন্ত কমিটি এই ঘটনার বিশদ খতিয়ে দেখবে৷

হতাহতের ঘটনার নিন্দা প্রকাশ করেছেন নাগাল্যান্ডের মুখ্যমন্ত্রী নেইফিউ রিও৷